অস্ট্রেলিয়ায় আটক হলেন জকোভিচ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, জানুয়ারি ১৫, ২০২২ ১১:৫১:০১ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক:
আগের দিনই ইঙ্গিত মিলেছিল। সে ইঙ্গিত সত্য করে আজ শনিবার বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা নোভাক জকোভিচকে আটক করলেন অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন কর্মকর্তারা। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, ৩৪ বছর বয়সি সার্বীয় টেনিস তারকা জকোভিচ বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নের একটি ঠিকানায় রয়েছেন।

অসি অভিবাসনমন্ত্রী অ্যালেক্স হকের দাবি, অস্ট্রেলিয়ায় জকোভিচের উপস্থিতি দেশটিতে টিকাবিরোধী মনোভাব জাগাতে পারে। এতে নাগরিক অস্থিরতা বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা অ্যালেক্স হকের।

কিছুদিন ধরেই ক্রীড়া জগতের সবকিছু ছাপিয়ে আলোচনার কেন্দ্রে নোভাক জকোভিচ। আলোচনার সূত্রপাত ২০ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যামজয়ী তারকার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলতে যাওয়া নিয়ে।

গত ৬ জানুয়ারি মেলবোর্নে আসার পর জকোভিচের ভিসা প্রথমবার প্রত্যাহার করা হয়েছিল। তখন তাঁর ভিসা বাতিল করে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের হোটেলে আটকে রাখা হয়। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়, দেশটিতে ভ্রমণের ক্ষেত্রে জকোভিচ শর্ত পূরণ করেননি। তাই তাঁর ভিসা বাতিল করা হয়েছে এবং তাঁকে পুনরায় দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

ঘটনাটি নিয়ে ঝড় ওঠে টেনিস বিশ্বে। ফেরত পাঠানো এড়াতে অস্ট্রেলিয়ার হাইকোর্টে আবেদন করেন জকোভিচ। তোপের মুখে পড়ে অস্ট্রেলিয়ার আদালত শেষপর্যন্ত গত সোমবার জকোভিচকে মুক্তি দেওয়ার আদেশ দেন। এর পরেই মেলবোর্নের টেনিস কোর্টে অনুশীলনে ফেরেন জকোভিচ। অনুশীলনে ফেরার পর এক বিৃবতিতে সার্বীয় তারকা দাবি করেন, অস্ট্রেলিয়ার ট্রাভেল ডিক্লারেশন ফরম পূরণের সময় ভুল বাক্সে টিকচিহ্ন করেছিলেন তাঁর এজেন্ট। ভিসা-সংক্রান্ত যাবতীয় গোলযোগ এজেন্টের ভুলের কারণে হয়েছে।

কিন্তু, অস্ট্রেলিয়ার সরকার নির্বাহী ক্ষমতা ব্যবহার করে গতকাল শুক্রবার জকোভিচের ভিসা আবারও বাতিল করে। কোভিড টিকা না নেওয়ার কারণে অস্ট্রেলিয়ার সরকার জকোভিচের ভিসা দ্বিতীয় বারের মতো বাতিল করে। এ সিদ্ধান্তের ফলে তাঁকে এখন অস্ট্রেলিয়া থেকে বহিষ্কার করাসহ দেশটিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে তিন বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হতে পারে।

এদিকে, জকোভিচের মামলার শুনানি শেষ না হওয়া পর্যন্ত টেনিস তারকাকে ফেরত পাঠাবে না বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার।

ফেডারেল আদালতের জরুরি শুনানির আগে জকোভিচকে শনিবার ও রোববার মেলবোর্নে অভিবাসন কর্মকর্তাদের সামনে হাজির হওয়ার জন্য তলব করা হয়েছিল। সার্বীয় তারকাকে একটি ঠিকানা থেকে আদালতের কার্যক্রম অনুসরণ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। ওই ঠিকানায় তাঁর আইনজীবীদের অফিস রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অস্ট্রেলীয় সীমান্তরক্ষা সংস্থার কর্মকর্তারা সেখানে পাহারায় রয়েছেন। জকোভিচের আইনজীবীদের যুক্তি—অসি সরকার তার দাবির সমর্থনে কোনো প্রমাণ দিতে পারেনি।

আগামীকাল রোববার মেলবোর্নে জকোভিচের মামলার নতুন করে শুনানি। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৯টায় শুনানি শুরু হবে। বাংলাদেশ সময় রোববার ভোর সাড়ে ৪টায় শুনানি শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

আদালতের রায় নোভাক জকোভিচের বিরুদ্ধে গেলে অস্ট্রেলিয়া সরকার তাঁকে ফেরত পাঠাবে। সে ক্ষেত্রে আগামী তিন বছরের জন্য বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকার ভিসা বাতিল করে দিতে পারে অস্ট্রেলিয়া সরকার।

গত মাসে কোভিডে আক্রান্ত হন জকোভিচ। পরে কোভিডমুক্ত হয়েই কোর্টে খেলতে নেমে পড়েন৷ অস্ট্রেলিয়ান ওপেন খেলতে চলতি সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়া যান৷

এদিকে, কোভিডের জন্য অস্ট্রেলিয়ায় বাইরের দেশের নাগরিকদের জন্য নিয়মের অনেক কড়াকড়ি৷ অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক না হলে সে দেশে ঢুকতে গেলে কোভিড টিকার সনদ লাগছে। জকোভিচ এক মাস হলো কোভিড সংক্রমণ থেকে সেরে উঠেছেন।

গত বৃহস্পতিবার মেলবোর্ন বিমানবন্দরে নামার পর অভিবাসন দপ্তর জকোভিচকে আটক করে৷ তাঁর কাছে কোভিড টিকাকরণ সংক্রান্ত নথিপত্র ছিল না বলে অভিবাসন দপ্তর দাবি করে৷ জকোভিচের ভিসা বাতিল করে দেওয়া হয়৷ তাঁকে হোটেলে আটক করে রেখে দেওয়া হয়৷ টেনিস তারকার আইনজীবী পাল্টা চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আবেদন করেন।

নানা ঘটনার পর সার্বীয় তারকাকে রেখেই গত বৃহস্পতিবার হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ড্র। কিন্তু, ড্র হওয়ার পর জকোভিচ নাটকে দেখা দেয় নতুন মোড়। টেনিসের এক নম্বর তারকার ভিসা ফের বাতিল করে দেয় অস্ট্রেলিয়া। আগামী সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন।

জনপ্রিয়