আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোর পূর্বক জমি দখল

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, ডিসেম্বর ২৬, ২০২২ ৮:৪৮:১০ অপরাহ্ণ

মাসুদ রানা, মোংলা প্রতিনিধি:
মোংলায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্যেও জোর পুর্বক অসহায় এক দিন মজুরের পৈত্তিক জমি ও বসতভিটা দখল করেছে একদল ভুমিদস্যু সন্ত্রাসীরা। রাতের অন্ধকারে প্রায় শতাধিক সন্ত্রাসী নিয়ে দক্ষিন চাঁদপাই আড়াজি মাকোরঢোন নতুন কবরস্থান রোড এলাকায় ওই দিন মজুরের জমিতে ঘর তৈরী ও ঘেড়া-বেড়া দিয়ে দখলে নেয় তারা। সোমবার দুপুরে মোংলা থানার একদল পুলিশ গিয়ে ঘর তৈরী ও ঘেড়া-বেড়া দেয়া বন্ধ করে দেয়। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। জমির মালিক মোঃ ছফরুল হাওলাদার বাদি হয়ে মোংলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

থানার অভিযোগ সুত্রে ও ভুক্তভোগীরা জানায়, মোংলা উপজেলা ২১ নং আরজী মাকড়ঢোন মৌজার এস এ ২০ নং খতিয়ানের ৮৭২ দাগের ০.৩৩ একর পৈত্তিক জমি দীর্ঘ দিন ভোগ দখল করে আসছিল মোঃ ছফরুল হাওলাদার সহ তার স্বজনরা। এ নিয়ে প্রতিপক্ষ রোকন হাওলাদার ও নাসির হাওলাদার সহ কয়েকজন সন্ত্রাসী ওই জমির মধ্যে তাদেরও জমি রয়েছে দাবী করে অনেক দিন থেকেই ভোগ দখলীয় ওই জমি জোর পুর্বক দখলের চেষ্টা করে আসছে।

অভিযুক্ত মোঃ রোকন হাওলাদার ও মোঃ নাসির হাওলাদার দক্ষিণ চাঁদপাই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মৃত আবু বক্কর হাওলাদারের ছেলে। ভুক্তভোগী মোঃ ছফরুল হাওলাদার একই এলাকার মৃত আবুল হোসেন হাওলাদারের ছেলে। ভুক্তভোগী মোঃ ছফরুল হাওলাদারের দাবী, প্রতিপক্ষ রোকন ও নাসিরদের সাথে আমাদের পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ থাকায় তারা প্রায় সময়ে আমাদের ভয়ভীতি ও জীবন নাশের হুমকিসহ সন্ত্রাসীদের দিয়ে জমিটুকু জোর পুর্বক দখলের চেষ্টা করে আসছে। এ নিয়ে স্থানিয়ভাবে বেশ কয়েকবার সালিশ বৈঠকও হয়েছে কিন্ত তাদের দাবীর মুখে কোন সুরাহ করতে পারেনী স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিদয়। এ ঘটনা নিয়ে বাগেরহাট বিজ্ঞ আদালতে জমি সক্রান্ত একটি নিষেধাজ্ঞার মামলা দায়ের করি। সেখানে আদালত এ জমিতে কোন প্রকার কার্যক্রম না করার জন্য আদেশ প্রদান এবং আইনশৃংঙ্খলা বজায় রাখার জন্য মোংলা থানা পুলিশকে সহায়তার জন্য বলা হয়, যে মামলা আদালতে এখনও চলমান রয়েছে।

কিন্তু সোমবার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টার দিকে অভিযুক্ত নাসির ও রোকন আদালতের আদেশ অমান্য করে আমাদের পৈত্রিক ভোগদখলীয় জমির মধ্যে অনধিকার প্রবেশ করে শতাধিক সন্ত্রাসীদের নিয়ে জোর পুর্বক দখল করে এবং নতুন ঘর তৈরী ও জমিতে ঘেড়া-বেড়া দিয়ে দখলে নেয় এবং বেশ কিছু মুল্যবান গাছপালা কেটে সেখানে সন্ত্রাসী তান্ডপ চালায় তারা। এসময় কয়েকজন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত থেকে এ জমি দখলের সহায়তা করারও অভিযোগ করে। এতে প্রতিবাদ ও ডাক চিৎকার দিলে এলাকাবাসী ছুটে আসলে আমাদের খুন জখম সহ প্রান নাশের হুমকি দিয়ে দ্রæত চলে যায় সন্ত্রাসীরা বলে দাবী ছফরুলের।

ঘটনাটি মোংলা থানাকে অবহিত করলে এ এস আই নাসির উদ্দিন ও আমিনুল সহ একদল পুলিশ গিয়ে পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এছাড়া বিরোধপুর্ন ওই জমিতে ঘর তৈরী ও ঘেড়া-বেড়া সহ সকল প্রকার কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়।

মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ মনিরুল ইসলাম বলেন, দক্ষিন চাঁদপাই আরজী মাকড়ঢোন এলাকায় ছফরুল হাওলাদার’র একটি জমি নিয়ে আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকার পরও প্রতিপক্ষরা সেখানে ঘর তৈরী ও ঘেড়া-বেড়া দেয়ার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়েছে এবং সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। তার পরেও যদি আদালতের নিদের্শনা অমান্য করে সেখানেপুনরায় কাজ করার চেষ্টা করে তবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যাবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেয় থানার এ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন :সুন্দরবনের ৩ বনদস্যু গ্রেফতার

জনপ্রিয়