ইউক্রেনে বেসামরিক নাগরিককে হত্যার কথা স্বীকার করলো রুশ সেনা

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, মে ১৯, ২০২২ ১০:৫১:৩৫ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক
তিন মাস আগে ইউক্রেনের রাশিয়ার আগ্রাসনের পর, ইউক্রেনের দায়ের করা প্রথম যুদ্ধাপরাধের মামলায় সে দেশের এক নিরস্ত্র বেসামরিক নাগরিককে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন ২১ বছর বয়সি এক রুশ সেনা। বুধবার ওই রুশ সেনা নিজের অপরাধ স্বীকার করেন। খবর ভয়েস অব আমেরিকার।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে রাশিয়া আক্রমণ শুরু করার চার দিন পর একটি খোলা গাড়ির জানালা দিয়ে ৬২ বছর বয়সি এক ইউক্রেনীয়কে মাথায় গুলি করার দায়ে সার্জেন্ট ভাদিম শিশিমারিনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে।

ইউক্রেনের প্রসিকিউটর-জেনারেল ইরিনা ভেনেডিক্টোভা এর আগে জানিয়েছিলেন, তাঁর দপ্তর ৪১ জন রুশ সৈন্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের মামলা প্রস্তুত করছে। এ অপরাধগুলোর মধ্যে রয়েছে—বেসামরিক অবকাঠামোতে বোমা হামলা, বেসামরিক নাগরিকদের হত্যা, ধর্ষণ ও লুটপাটের মতো অপরাধ। তবে, ঠিক কত জন রুশ সৈন্য ইউক্রেনের হেফাজতে রয়েছে বা অনুপস্থিতিতে কত জনের বিচার হতে পারে, তা স্পষ্ট নয়।

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের আদালতে মামলার শুনানিতে, ভেনেডিক্টোভা অভিযোগ করেছেন—সার্জেন্ট শিশিমারিন রাশিয়ার সৈন্যদের একটি দলে ছিলেন। ওই দলটি ২৮ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনীয় বাহিনীর হাত থেকে পালাতে কিয়েভ থেকে প্রায় ৩২০ কিলোমিটার পূর্বে চুপাখিভকা গ্রামের দিকে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিল।

প্রসিকিউটর-জেনারেল বলেছেন, পথে রাশিয়ার সৈন্যরা এক ব্যক্তিকে সাইকেল চালিয়ে ফোনে কথা বলতে দেখেছিলেন। ভেনেডিক্টোভার ভাষ্য—লোকটিকে হত্যা করার জন্য শিশিমারিনকে আদেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কে এ আদেশ দিয়েছিল, তা তিনি বলেননি।

ভেনেডিক্টোভা তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লিখেছেন, শিশিমারিন খোলা জানালা দিয়ে তাঁর কালাশনিকভ রাইফেল দিয়ে ভুক্তভোগীর মাথায় গুলি চালিয়েছিলেন। তিনি বলেন, ‘লোকটি তাঁর বাড়ি থেকে মাত্র কয়েক ডজন মিটার দূরে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়।’

ইউক্রেনীয় সিকিউরিটি সার্ভিসের রেকর্ড করা একটি সংক্ষিপ্ত ভিডিও অ্যাকাউন্টে শিশিমারিন বলেছেন, ‘আমাকে গুলি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। আমি তাকে একটি (রাউন্ড) গুলি করেছিলাম। সে মাটিতে পড়ে যায় এবং আমরা সামনে এগোতে থাকি।’

ভেনেডিক্টোভার অফিস বলেছে, তারা রাশিয়ার সৈন্য, সরকারি কর্মকর্তাসহ ৬০০ জনের বেশি সন্দেহভাজন ব্যক্তির বিরুদ্ধে ১০ হাজার ৭০০টির বেশি সম্ভাব্য যুদ্ধাপরাধের মামলার তদন্ত করছে। আন্তর্জাতিক কর্তৃপক্ষও রাশিয়ার সম্ভাব্য যুদ্ধাপরাধের তদন্ত করছে। একই সঙ্গে মস্কোও ইউক্রেনীয় সেনাদের বিরুদ্ধে অপরাধের মামলায় কাজ করছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে, রাশিয়া বেসামরিক নাগরিকদের নিশানা করার কথা অস্বীকার করেছে, বরং ইউক্রেনকেই নৃশংসতার জন্য পালটা অভিযুক্ত করেছে।

অন্যদিকে, ইউক্রেন বলছে, তাদের হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিক রাশিয়ার আগ্রাসনে নিহত হয়েছে।

আরও পড়ুন : ইউক্রেনে যুদ্ধের প্রভাবে বিশ্বে খাদ্য সংকট দেখা দিতে পারে : জাতিসংঘ

জনপ্রিয়