ইউক্রেনে যেকোনো মুহূর্তে হামলা করতে পারে রাশিয়া : যুক্তরাষ্ট্র

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, জানুয়ারি ১৯, ২০২২ ১১:৫৪:২৭ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক
রাশিয়া ‘যেকোনো মুহূর্তে’ ইউক্রেনে হামলা করতে পারে বলে মনে করছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আগামী শুক্রবার জেনেভায় রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসার আগে হোয়াইট হাউস থেকে এমন তথ্য জানানো হলো। সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরভের সঙ্গে বৈঠকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন ইউক্রেনের সঙ্গে সীমান্তে উত্তেজনা কমানোর জন্য ‘অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে’ রাশিয়ার প্রতি আহ্বান জানাবেন।

রাশিয়া তার প্রতিবেশী ইউক্রেনে হামলা করার পরিকল্পনা করছে—এমন ক্রমাগত আশঙ্কার মধ্যে দেশটির প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনার জন্য ব্লিনকেন এ সপ্তাহে ইউক্রেনে যাচ্ছেন।

হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি বলেছেন, ‘আমরা এখন এমন এক পর্যায়ে আছি, যেখানে রাশিয়া যেকোনো সময় ইউক্রেনের ওপর হামলা চালাতে পারে।’

জেন সাকি আরও বলেন, মস্কো যদি ইউক্রেনের বিরুদ্ধে আরও সামরিক আগ্রাসন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়, তাহলে যুক্তরাষ্ট্র ‘একটি ভিন্ন পরিণতি দিতে প্রস্তুত থাকছে।’

যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ—রাশিয়া তার সৈন্য সংগ্রহ এবং ইউক্রেনের বিরুদ্ধে তার কড়া বাগাড়ম্বর অব্যাহত রেখেছে এবং সপ্তাহান্তে রুশ বাহিনীকে বেলারুশে স্থানান্তর করেছে।

‘কূটনীতি মৃত নয়’
মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগের একজন পদস্থ কর্মকর্তা গতকাল মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বলেন, ‘‌যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বাস করে—এ সংঘাত সফলভাবে সমাধানের একমাত্র উপায় কূটনীতি।’ ‌মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনার জন্য সে দেশে রওনা দেওয়ার আগে মঙ্গলবার রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরভের সঙ্গে কথা বলেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র বিভাগ এ কথোপকথন সম্পর্কে এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইউক্রেনে রুশ সামরিক কর্মকাণ্ড ঘিরে উত্তেজনা হ্রাস করার জন্য একটি কূটনৈতিক পথ অব্যাহত রাখার গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছেন।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক অখণ্ডতার প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের অটুট প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেছেন এবং জোর দিয়েছেন যে, ইউরোপীয় নিরাপত্তা নিয়ে যেকোনো আলোচনায় ইউক্রেনসহ ন্যাটো মিত্র ও ইউরোপীয় অংশীদারদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।’

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র বিভাগ আরও বলেছে, দ্রুত পরিকল্পিত এ সফরে ব্লিনকেন বুধবার কিয়েভে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী দ্যমিত্র কুলেবার সঙ্গে দেখা করবেন।

ব্লিনকেন এরপর জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালেনা বেয়ারবকের সঙ্গে দেখা করবেন। মার্কিন পররাষ্ট্র বিভাগ বলেছে, ব্লিনকেন সেখানে রাশিয়ার সঙ্গে সাম্প্রতিক কূটনৈতিক যোগাযোগ এবং ইউক্রেনের বিরুদ্ধে আরও রুশ আগ্রাসন রোধ করার জন্য যৌথ প্রচেষ্টা নিয়ে আলোচনা করবেন।

সংবাদমাধ্যম ভয়েস অব আমেরিক বলছে—ইউক্রেনের পূর্ব সীমান্তে আনুমানিক এক লাখ রুশ সৈন্যের অবস্থানে যুক্তরাষ্ট্রের আশঙ্কা যে, মস্কো তার প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপের পরিকল্পনা করছে। ইউক্রেন একসময় সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল। ২০১৪ সালে রাশিয়া ইউক্রেন থেকে ক্রিমিয়া উপদ্বীপ দখল করে নেয়।

ইউক্রেনসহ অন্যান্য নিরাপত্তা ইস্যুতে মতপার্থক্য নিষ্পত্তির লক্ষ্যে গত সপ্তাহে জেনেভায় রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের মধ্যে আলোচনার পর ব্লিনকেনের এ সফরের পরিকল্পনা করা হলো। তবে, ওই বৈঠকের কোনো অগ্রগতির খবর পাওয়া যায়নি।

জনপ্রিয়