ইতিহাস কখনো কাউকে ক্ষমা করে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, মার্চ ২১, ২০২২ ৬:১২:১৫ অপরাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, অন্যায় করলে, কোনো না কোনোদিন তা প্রকাশ পায়। ইতিহাস কাউকে কোনোদিন ক্ষমা করে না ।

তিনি বলেন, একসময় দেশের স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করে তা শিশু-কিশোরদের মাঝে প্রচার করা হয়েছিলো। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর দেশের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরেছেন।

সোমবার (২১ মার্চ) জাতীয় জাদুঘরের শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব হলে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০২তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও ল্যাপটপ তুলে দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, ২৫ মার্চ আসছে আমাদের সামনে, সেই কালরাত। পাকিস্তান হানাদার বাহিনী নিরস্ত্র বাঙালির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। সেদিন থেকে দেশ স্বাধীন হওয়া পর্যন্ত ৩০ লাখ বাঙালি শাহাদাতবরণ করেছিলেন। এতো রক্ত স্বাধীনতার জন্য কোনো দেশ দেয়নি। রক্তে রঞ্জিত হয়নি এমন কোনো গ্রামের নাম কেউ বলতে পারবে না। বঙ্গবন্ধু কীভাবে হলেন, বাংলাদেশ কীভাবে হলো তা জানার জন্য এই বইটি (অসমাপ্ত আত্মজীবনী) পড়তে হবে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, দেশের ইতিহাস বিকৃতর অপচেষ্টা আমরা দেখেছি। কেউ একজন হুঙ্কার দিলো বা হুইসেল দিলো, আর দেশ স্বাধীন হয়ে গেলো! এমনটি হয়নি।

তিনি আরো বলেন, ৩ মার্চ বঙ্গবন্ধু তার বাসভবনে স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলন করার সাথে সাথে সারাদেশের এমন কোনো বাড়ি নেই, যেখানে স্বাধীনতার পতাকা ওড়েনি।

৭ মার্চের ভাষণ বাংলাদেশকে বদলে দিয়েছিল উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমরা নিরস্ত্র বাঙালি, তাই বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, যার কাছে যা কিছু আছে তা নিয়ে রুখে দাঁড়াতে। বঙ্গবন্ধুর ডাকে নিরস্ত্র বাঙালি সশস্ত্র হয়ে দেশ স্বাধীন করেছিলো।

শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের মহাসচিব কে এম শহিদ উল্যা’র সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম, অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা প্রমুখ।

আরো পড়ুন : দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে কঠোর ব্যবস্থা : টিপু মুনশি

জনপ্রিয়