এবারের বিশ্বকাপে নজর কাড়বে যে ১০ তরুণ ফুটবলার

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, নভেম্বর ১৮, ২০২২ ৪:৪৫:০৫ অপরাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক:
ব্রাজিল বিশ্বকাপে আলাদা করে নজর কেড়েছিলেন হামেজ রদ্রিগেজ। আর রাশিয়া বিশ্বকাপে ফান্সের কিলিয়ান এমবাপে আলাদাভাবে নজরে ছিলেন ফুটবল ভক্তদের। বিশ্বকাপকে সামনে রেখেই উদীয়মান ফুটবলারদের দিকে আলাদা করে নজর থাকে ফুটবল ভক্তদের।

আর মাত্র দুই দিন, রোববার থেকে শুরু হচ্ছে ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ। কাতারে ফিফার ২২তম আসরেও ফুটবলপ্রেমীদের আলাদা নজরে থাকবেন বেশ কিছু তরুণ ফুটবলার। দেখে নেওয়া যাক, যে ১০ জন ফুটবলার এবার আলাদাভাবে নজর কাড়তে পারেন।

আনসু ফাতি (স্পেন)
স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে অভিষেকের পর থেকেই আলোচনায় আছেন সম্ভাবনাময় তরুণ ফুটবলার আনসু ফাতি। ইতোমধ্যে বারবার নিজের প্রতিভার জানান দিয়েছেন এই স্ট্রাইকার। সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে লা লিগায় জোড়া গোলের রেকর্ড গড়েন তিনি। পেছনে ফেলেছেন মালাগার হয়ে ১৭ বছর ১১৫ দিনে জোড়া গোল করা হুয়ানমিকে। মাত্র ১৬ বছর ৩০৪ দিনে গোলের দেখা পান স্পেনের হয়ে কনিষ্ঠতম এই গোলদাতা। সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে ভেঙেছেন সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী লিওনেল মেসির রেকর্ডও। নিখুঁত এই ফিনিশার হতে পারেন স্পেনের শিরোপা জয়ের অন্যতম ট্রাম্পকার্ড।

পাবলো গাভি (স্পেন)
স্পেন দলের অন্যতম আস্থার জায়গা মিডফিল্ডার পাবলো গাভি। স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার নিয়মিত মুখ ১৮ বছর বয়সী এ মিডফিল্ডার। স্প্যানিশ অন্য দুই তরুণ ফুটবলার আনসু ফাতি ও পেদ্রির সঙ্গে ফুটবলপ্রেমীদের আলাদা নজরে থাকবেন গাভি। সার্জিও বুস্কেটস-পেদ্রির সঙ্গে তাকে ইউরোপীয় সেরা ত্রয়ী মিডফিল্ড ভাবা হচ্ছে।

অরলিয়েন চুয়ামেনি (ফান্স)
রাশিয়া বিশ্বকাপ জয়ী ১১ চ্যাম্পিয়নকে নিয়ে বিশ্বকাপ দল ঘোষণা করেছে ফান্স। তবে মিডফিল্ডার এনগোলো কান্তে ও পল পগবা’র চোটে পড়া ভোগাবে চ্যাম্পিয়নদের। আর এই দলে জায়গা করে নিয়েছেন তরুণ মিডফিল্ডার অরলিয়েন চুয়ামেনি। টানা দ্বিতীয়বার শিরোপা উঁচিয়ে ধরার লক্ষে ফ্রান্স কোচ দিদিয়ের দেশমের দলে আছেন রিয়াল মাদ্রিদের তরুণ এই সেনসেশন।

ফিল ফডেন (ইংল্যান্ড)
ম্যানচেস্টার সিটির একাদশে নিয়মিত পারফর্ম করা ফিল ফডেনও থাকবেন কাতার বিশ্বকাপে ফুটবলপ্রেমীদের নজরে। আলাদাভাবে দায়িত্ব থাকবে এই ইংলিশ তারকার ওপর। গোল করা, গোল করানোসহ বিশেষভাবে ফুটবলপ্রেমীদের নজর কাড়বেন এই ফরোয়ার্ড।

জুলিয়ান আলভারেজ (আর্জেন্টিনা)
লিওনেল মেসি, পাওলো দিবালা ছাড়া আর্জেন্টিনা অধিকাংশের বিশ্বকাপে অভিজ্ঞতা অনেকাংশেই কম। তবে আর্জেন্টিনার এবারের দলে আলাদাভাবে নজর কাড়বে তরুণ ফরোয়ার্ড জুলিয়ান আলভারেজ। ডি-বক্সের যেকোনো প্রান্ত থেকে বল জালে পাঠানোর সক্ষমতা রয়েছে। ম্যানচেস্টার সিটির এই ফরোয়ার্ড ফুটবলপ্রেমীদের কাছে ‘স্পাইডার আলভারেজ’ নামেই বেশ পরিচিত।

ফেদে ভালভার্দে (উরুগুয়ে)
উরুগুয়ে কোচ ডিয়েগো আলোনসো অভিজ্ঞ ও পরীক্ষিত তারকাদের মিশেলে দলে জায়গা করে নিয়েছেন তরুণ মিডফিল্ডার ফেদে ভালভার্দে। বিয়াল মাদ্রিদের এই তারকা বেশ ভালোভাবেই দর্শকদের নজরে থাকবেন। তার দৌড়ানোর দক্ষতা ও দূরপাল্লার শর্ট যেকোনো দলের জন্য হুমকির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তরুণ এই সেনসেশনকে উরুগুয়ের বিশ্বকাপ মিশনে সবচেয়ে বড় তারকা হিসেবেই ভাবা হচ্ছে।

জামাল মুসিয়ালা (জার্মানি)
কাতার বিশ্বকাপে বায়ার্ন তারকা জামাল মুসিয়ালার ওপর ফুটবলপ্রেমীদের আলাদা স্পটলাইট থাকবে। তারুণ্য নির্ভর জার্মানির এই তারকা যেকোনো সময় ম্যাচের সমীকরণ পাল্টে দেওয়ার সক্ষমতা রাখেন। জার্মানির টাম্পকার্ড হয়ে রাখতে পারেন অনবদ্য অবদান।

জুডে বেলিংহাম (ইংল্যান্ড)
জার্মান ক্লাব বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে মাঠ মাতাছেন ১৯ বছর বয়সী জুডে বেলিংহাম। ইংলিশ কোচের অন্যতম ভরসার জায়গা এই মিডফিল্ডার। চলতি মৌসুমে লিওনেল মেসির পর সেরা ডিবলিংয়ের তালিকায় রয়েছে তার নাম।

ভিনিসিয়াস জুনিয়র (ব্রাজিল)
স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদের তারকা ফুটবলার ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে বিশ্বের অন্যতম সেরা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন সাবেক ব্রাজিলিয়ান তারকা ফুটবলার লুকাস মাউরা। ভিনিসিয়াস জুনিয়র এখন বড্ড অপ্রতিরোধ্য। দলের জয়ে অবদান রাখছেন। আছেন দুর্দান্ত ছন্দে। এই ব্রাজিলিয়ানকে নেইমার জুনিয়র থেকেও খানিকটা এগিয়ে রাখা হচ্ছে। তাই কাতার বিশ্বকাপে এই অতি দানবের দিকে বাড়তি নজর থাকবে ফুটবলভক্তদের।

পেদ্রি (স্পেন)
স্প্যানিশ মিডফিল্ডার পেদ্রি কাতার বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি আগ্রহের তালিকায় ফুটবলপ্রেমীদের। স্প্যানিশ কোচ লুইস এনরিকের দলে অন্যতম ভরসার জায়গা পেদ্রি। তরুণ এই সেনসেশন প্লে-মেকিং দিক থেকে লিওনেল মেসিকে বারবার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া পেদ্রি আলাদাভাবে নজরে থাকবেন। পেদ্রিকে ঘিরেই অনেকটা সাজানো হয়েছে স্পেনের গেম প্ল্যানিং। ২০২০ ইউরোতে একক সেরা পারফর্মার ছিলেন ১৯ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার। পেদ্রিকে স্পেনের বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার ভার্সন টু হিসেবে ধরা হয়।

আরও পড়ুন : বিশ্বকাপে ৩২ দেশের অধিনায়কের তালিকা

জনপ্রিয়