এশিয়ান টেলিভিশনের নবম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে রাজশাহীতে কম্বল বিতরণ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, জানুয়ারি ১৯, ২০২২ ৭:৩৯:০০ অপরাহ্ণ

আখতার রহমান, রাজশাহীঃ
“৯ পেরিয়ে ১০ এ পদার্পণ, সবার সাথে এশিয়ান টেলিভিশন”। এ প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে নবম বর্ষপূর্তি ও দশম বর্ষে পদার্পন উপলক্ষে অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় দিনে রাজশাহীতে অসহায় ও দুঃস্থ মানুষের মাঝে শতাধিক কম্বল বিতরণ করলেন এশিয়ান টিলিভিশনের রাজশাহী স্টাফ রিপোর্টার আখতার রহমান, জেলা প্রতিনিধি সোহাগ আলী, পবা (রাজশাহী) প্রতিনিধি বারিউল আলম শান্ত।

এশিয়ান টেলিভিশন ও এশিয়ার গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ হারুন-উর-রশীদ এর মহানুভবতা ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো অংশ হিসাবে রাজশাহীর সুবিধাবঞ্চিত পথশিশু ও অসহায় দুঃস্থ মানুষের হাতে কম্বল তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রাজশাহী জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ লায়েব উদ্দীন লাভলু।

এশিয়ান টেলিভিশনের রাজশাহীর স্টাফ রিপোটার্র আখতার রহমানের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বাঘা পৌর শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সমাজ সেবক কামাল হোসেন, আলহাজ¦ আব্দুল মুনিম সহ সুধীজন ও স্বেচ্ছাসেবক উপস্থিত ছিলেন।

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আশপাশের দুস্থ মানুষ এশিয়ান টেলিভিশন এর কম্বল পেয়ে নিজেদের অনুভুতি প্রকাশ করেন, ‘এই শীতে একমাত্র সম্বল আপনাদের কম্বল’।

৮০ বছরের বৃদ্ধ আলীম উদ্দীন বলেন, ‘আমি ভিক্ষা করি। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন গলিতে গলিতে মানুষের কাছ থেকে যা পায় তাই নিয়ে চাল, ডাল কিনে কোনোমতে চলে’। এই বৃদ্ধের ভাষায়, ‘কিতা করবো, ভিক্ষা না করলে খামু কি? একমাত্র ছেলে সে বিয়ে করার পর আমাকে ছেড়ে চলে গেছে। এখন থাকি আহমোদপুর বাড়িতে। এই যে শীত যাচ্ছে কেউ একটা কাপড় দেয়নি। আজকের এশিয়ান টেলিভিশনের দেওয়া কম্বলই এবারের শীতের একমাত্র সম্বল’।

তার মতোই এশিয়ান টেলিভিশনের দেওয়া কম্বল গায়ে জড়িয়ে প্রতিবন্ধী মানিক উদ্দীন (৪০) বলেন, এশিয়ার টেলিশনের চেয়ারম্যানের মহানুভবতায় পেলাম কম্বল। ‘ভিক্ষা করি না সম্মানের ভয়ে, বাদাম বিক্রি করি, বাড়ি আমার লালপুর উপজেলায় তবে আমি বাঘাতে প্রতিদিন রাস্তায় রাস্তায় বাদাম বিক্রি করি।

তাদের মতোই শতাধিক এশিয়ান টেলিভিশনের কম্বল পেয়ে নিজেদের আনন্দের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন বিবি সুভা বেগম (৭৫), আকলিমা বেগম (৬৫), মর্জিনা বেগম (৫৫), ছোট্ট শিশু সায়মা (০৭), সাকিল, মিজানুর রহমান আরো অনেকে।

জনপ্রিয়