কবি ও অধ্যাত্ম সাধক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ চর্চা-কেন্দ্র এর কাব্যচর্চা অনুষ্ঠিত

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, অক্টোবর ১৬, ২০২১ ৩:০০:৫৯ অপরাহ্ণ

সুজন মাহমুদ
কবি ও অধ্যাত্ম সাধক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ চর্চা-কেন্দ্র এর দ্বিতীয় অনুষ্ঠান গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ জেলার ভূঁইগড়ের হাকিমাবাদে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানের মধ্যমনি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চর্চা-কেন্দ্রের প্রধান পৃষ্ঠপোষক, খাস মোজাদ্দেদিয়া তরিকার প্রধান খাদেম ও গণপূর্তের প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ শামীম আখতার।

তিনি বলেন, মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ অধ্যাত্ম সাধনার পাশাপাশি মানুষের বোধ চৈতন্য জাগ্রত করতে কাব্যচর্চাকে বেছে নিয়েছিলেন। তাঁর কালজয়ী কাব্যে রয়েছে মানুষের অর্ন্তরাত্মাকে পরিশুদ্ধ পবিত্রতা করার শাশ্বত আহ্বান। তাঁর সেই আহ্বান ছড়িয়ে দিতে হবে কাব্যপ্রেমী তথা পাঠকের মাঝে।

উপস্থিত অতিথি ও আলোচকগণ

কবি ও অধ্যাত্ম সাধক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ চর্চা-কেন্দ্র এর পরিকল্পনাকারী শক্তিমান কথাসাহিত্যিক, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ইউসুফ শরীফ বলেন, কবি মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ এর কাবমহিমায় সৃজন সর্বত্মরে ছড়িয়ে দেয়াই চর্চা-কেন্দ্রের মূল উদ্দেশ্য। আর সেই উদ্দেশ্য সফল করতে আমাদের অগ্রযাত্রা আরো বেগবান করার মাধ্যমে দেশ-বিদেশের পাঠকের কাছে তাঁকে তুলে ধরবো।

কবি, সাংবাদিক ও গবেষক ড. মাহবুব হাসান বলেন, কবি মোহাম্মদ মামুনুর রশীদের কবিতায় রয়েছে মানবীয় চিত্রকল্পের নান্দনিক উপস্থাপন। তাঁর কবিতায় যেমন রয়েছে সত্যের প্রতি আহ্বান তেমনি রয়েছে সমাজ সংস্কারের বার্তা।

কবি ও সাংবাদিক জাহাঙ্গীর ফিরোজ বলেন, কাব্য প্রতিভা আল্লাহ্ প্রদত্ত জ্ঞানের বহিঃপ্রকাশ। কবি মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ শুধু একজন কবি নন, তিনি একজন মহান আধ্যাতিক সাধক। আর সে কারণেই তাঁর কাব্য রয়েছে অতুলনীয় স্রষ্টাপ্রেম, যার প্রতিটি পঙতিতে রয়েছে অমোঘ সত্যের বিচ্ছুরণ

কবি ও অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ জমির হোসেন বলেন, মানুষের আত্মা শুদ্ধ হলে সমাজ ও রাষ্ট্র সুন্দর হয়। কবি মোহাম্মদ মামুনুর রশীদের কবিতায় সেই বার্তাই আছে, যা পাঠে পাঠক নিজেকে শুদ্ধ হওয়ার প্রয়াস পাবে।

কবি, সাংবাদিক ও গবেষক মাহমুদুল হাসান নিজামী বলেন, কবিদের কাব্য সমাজে কথা বলে, রাষ্ট্রের কথা বলে। কিন্তু মোহাম্মদ মামুনুর রশীদের কবিতা একই সাথে মানুষকে সত্যের পথে, শান্তির পথে ধাবিত করে।

কবি আসাদ কাজল বলেন, কবি মোহাম্মদ মামুনুর রশীদের কবিতা কলোত্তীর্ণ। তাঁর কবিতায় ফুটে উঠেছে অসাধারণ দর্শন।

অনুষ্ঠানে কবি মোহাম্মদ মামুনুর রশীদের কবিতা পাঠ করেন কবি ও সাংবাদিক রুহুল গনি জ্যোতি, ঢালী মোহাম্মদ দেলোয়ার ও কবি ও সংগঠক মোঃ শামীম মিয়া। পবিত্র কোরান তেলাওয়াত করেন হাফেজ তাজুল ইসলাম এবং গজল পরিবেশন করেন মোহাম্মদ ইসমাইল। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক মাহমুদা আকতার। সঞ্চালনা করেন মাহমুদুন্নবী জ্যোতি।

উল্লেখ্য, বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ ছিলেন মহান আল্লাহর নৈকট্যধারী প্রিয়ভাজন, খাস মোজাদ্দেদীয়ার তরিকার পীর, শতাব্দীর মোজাদ্দেদ, সুলেখক, জীবনীকার, তাফসীরে মাযহারী অনুবাদের সম্পাদক। এছাড়া তিনি রচনা করেছেন ষাটের অধিক মহামূল্যবান গ্রন্থ। মহান এই মনীষীর কাব্যের চর্চা নিয়ে গত মাসের ১৮ তারিখ যাত্রা করে ‘কবি ও অধ্যাত্ম সাধক মোহাম্মদ মামুনুর রশীদ চর্চা-কেন্দ্র’।

আরো পড়ুন: মজার তথ্য ও অবাক করা ঘটনা

 

জনপ্রিয়