কাতার বিশ্বকাপে যা কিছু প্রথম

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, নভেম্বর ২০, ২০২২ ১১:১৭:৩৫ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক:
বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ফুটবলের বিশ্বকাপ শুরু হচ্ছে রোববার (২০ নভেম্বর) থেকে। ফুটবলের ইতিহাসে মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম দেশ হিসেবে ৩২টি দেশের ফুটবল খেলোয়াড় সহ ১২ লক্ষেরও বেশি দর্শককে ধারণ করবে কাতার। এবারের বিশ্বকাপ অন্যবারের থেকে একদমই আলাদা বলা হচ্ছে। ফুটবল বিশ্বকাপ আয়োজনে সবচেয়ে ব্যয়বহুল ধরা হচ্ছে এবারের আসরকে। কাতার বিশ্বকাপে বেশ কিছু বিষয় যুক্ত করেছে বিশ্ব ফুটবল নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা ফিফা, যা এবারই প্রথম প্রয়োগ করা হচ্ছে। প্রথমবার প্রয়োগ হতে যাওয়া সেই নতুন যুক্ত করা বিষয়গুলো হলো-

অফসাইড প্রযুক্তি জুলাই মাসে ফুটবলের বিশ্ব নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা দ্রুত এবং সঠিক অফসাইড কল করতে সহায়তা করার জন্য বিশ্বকাপে একটি আধা-স্বয়ংক্রিয় অফসাইড সিস্টেম ব্যবহারের ঘোষণা করেছে।

গভর্নিং বডির নিয়ম অনুযায়ী, একজন খেলোয়াড় অফসাইড পজিশনে থাকে যদি “মাথা, শরীর বা পায়ের কোনো অংশ প্রতিপক্ষের অর্ধেক থাকে (অর্ধেক লাইন বাদে) এবং মাথা, শরীর বা পায়ের কোনো অংশ কাছাকাছি থাকে বল এবং দ্বিতীয়-শেষ প্রতিপক্ষ উভয়ের চেয়ে প্রতিপক্ষের গোল লাইন”।

প্রযুক্তিটি খেলোয়াড়দের গতিবিধি অনুসরণ করতে বলের মধ্যে একটি সেন্সর এবং একটি অঙ্গ-ট্র্যাকিং ক্যামেরা সিস্টেম ব্যবহার করে। রেফারির সিদ্ধান্ত বুঝতে বাড়িতে ভক্ত এবং দর্শকদের সাহায্য করার জন্য, ডেটা স্টেডিয়ামের স্ক্রিনে থ্রিডি ছবি প্রজেক্ট করতে ব্যবহার করা হবে। এর অফসাইড বিষয়ে দর্শকদের মধ্যে বিরক্তি লাগলেও এবার নতুন প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে এর লিগ্যাল দিক স্পষ্ট ধারণা পাওয়ার কারণে এমনটা আর হবে না।

খেলোয়াড় পরিবর্তন
২০১৮ সালে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে এক ম্যাচে ৩টি পরিবর্তনের অনুমতি ছিল। এবার কাতার বিশ্বকাপে ৫ জন খেলোয়াড় পরিবর্তনের নিয়ম যুক্ত হয়েছে। ফুটবলের নিয়ম-নির্ধারণকারী সংস্থা, ইন্টারন্যাশনাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন বোর্ড, ২০২০ সালে এই প্রবিধানটি প্রবর্তন করেছিল “ফুটবলের উপর কোভিড-এর চলমান প্রভাবের বিশ্বব্যাপী বিশ্লেষণের পাশাপাশি ফুটবল জুড়ে বেশ কয়েকটি মূল স্টেকহোল্ডারের প্রতিনিধিত্বের পরে।

বিশ্বকাপের একটি খেলা অতিরিক্ত সময়েও একজন খেলোয়াড় পরিবর্তন করার নতুন নিয়মও যুক্ত হয়েছে। স্পেনের লা লিগা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মেজর লিগ সহ বেশ কয়েকটি ফুটবল লীগ গত দুই বছরে পরিবর্তনটি বাস্তবায়ন করেছে।

নভেম্বর কিকঅফ
এর আগে বিশ্বকাপের আয়োজনগুলো গ্রীষ্মকালে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অর্থ্যাৎ নিয়ম অনুযায়ী জুন থেকে জুলাইয়ের মধ্য বিশ্বকাপের আয়োজন অনুষ্ঠিত হতো। এবারই প্রথম এই সময়ের পরিবর্তন করে নভেম্বর থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে বিশ্বকাপের আয়োজন করা হচ্ছে। ফিফার বক্তব্য অনুযায়ী জুন-জুলাইয়ে কাতারে উচ্চ তাপমাত্রা থাকার কারণে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কাতারের আবহাওয়া দপ্তরের তথ্যমতে, এসময়ে দেশটির তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এর আশেপাশেই থাকে। বিশ্বকাপ চলাকালীন নভেম্বর-ডিসেম্বরে তাপমাত্রা ১৪ থেকে ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকবে।

বর্ধিত স্কোয়াড ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপে একটি দেশের ফুটবলের পুরো স্কোয়াডের সংখ্যা ছিল ২৩ জন। এবার এই সংখ্যার সঙ্গে আরও ৩ জন যুক্ত হয়ে ২৫ জনে দাঁড়িয়েছে। অর্থ্যাৎ কাতারের বিশ্বকাপে মূল ১১ জন সহ মোট ২৬ জনের স্কোয়াড নিয়ে প্রত্যেকটি দেশ আয়োজনে অংশ নিতে এসেছে। কোভিড-১৯ মহামারী দ্বারা সৃষ্ট সমস্যার কারণে এই পরিবর্তন করা হয়েছে।

বিশ্বকাপের প্রাথমিক স্কোয়াডের তালিকাও সর্বোচ্চ ৩৫ জন থেকে বাড়িয়ে ৫৫ করা হয়েছিল।

নারী রেফারি
পুরুষদের বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো নির্বাচিত ৩৬ জন রেফারির মধ্যে তিনজন নারীকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তারা হলেন, ফ্রান্সের স্টেফানি ফ্র্যাপার্ট, জাপানের ইয়োশিমি ইয়ামাশিতা এবং রুয়ান্ডার সালিমা মুকানসাঙ্গা। এর আগে তিনজনই উয়েফা সুপার কাপ এবং আফ্রিকা কাপ অফ নেশনস সহ পুরুষদের টুর্নামেন্টে দায়িত্ব পালন করেছেন।

সূত্র: আল জাজিরা

আরও পড়ুন : বিশ্বকাপ ফুটবলের রোমাঞ্চ শুরু আজ

জনপ্রিয়