শিরোনাম

জুমার দিনের ফজিলত

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২২ ১১:৪৩:৪০ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ইসলামি ডেস্ক:
মর্যাদা ও সম্মানের দিন জুমা। এ দিনের রয়েছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত। যার বর্ণনায় রয়েছে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের অনেক উপদেশ। জুমার দিনের আমলে আল্লাহ তাআলা ১০ দিনের গুনাহ মাফ করে দেন। জুমার দিনের এ আমলটি কী?

জুমার দিন মুসল্লিদের করণীয় ও প্রাপ্তি নিয়ে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের একটি হাদিসে ১০ দিনের গুনাহ মাফের কথা ওঠে এসেছে। যে কারণে গুনাহ মাফ হয় তাহলো-

হজরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেছেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি গোসল করে জুমার (নামাজ পড়ার) জন্য এলো। এরপর তার জন্য যত রাকাত নামাজ ভাগ্যে ছিল তা আদায় করলো। এরপর ইমামের খুতবা শেষ করা পর্যন্ত চপু করে থাকলো (খুতবা শুনলো) এবং তাঁর (ইমামের) সঙ্গে জুমার নামাজ আদায় করলো, তার জন্যে (ওই ব্যক্তির জন্য) দুই জুমার মাঝের ও অতিরিক্ত আরো তিন দিনের গুনাহসমূহ মাফ করে দেওয়া হবে।’ (মুসলিম)

হাদিসের আলোকে ১০ দিনের গুনাহ মাফ পাওয়ার জন্য জুমার দিন যে কাজগুলো করতে হবে, তাহলো-

১. গোসল করা।
২. মসজিদে প্রবেশ করে খুতবার আগে যত রাকাত সম্ভব নামাজ পড়া।
৩. চুপ থেকে ইমামের খুতবা শোনা।
৪. ইমামের সঙ্গে জুমার নামাজ আদায় করা।

সুতরাং জুমার মুসল্লিদের উচিত, এ দিন গোসল করা, মসজিদে গিয়ে খুতবার আগে যতটুকু সম্ভব নামাজ পড়া। চুপ থেকে খুতবা শোনা এবং ইমামের সঙ্গে জুমার আদায় করা। আর এর বিনিময়ে মহান আল্লাহ ওই ব্যক্তির ১০ দিনের গুনাহ ক্ষমা করে দেবেন।

আল্লাহ তাআলা জুমার সব মুসল্লিকে নিয়মিত এ আমল করে ১০ দিনের গুনাহ থেকে মুক্তির তাওফিক দান করুন। আমিন।

আরও পড়ুন :মসজিদ নির্মাণ করছেন অভিনেতা আহমেদ শরীফ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়