মোংলায় দুস্থ শিশুদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিল কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, ডিসেম্বর ২৮, ২০২২ ১১:০৭:৩৩ অপরাহ্ণ

মাসুদ রানা, মোংলা প্রতিনিধি:
মোংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের উদ্যোগে সুন্দরবন উপকূলীয় উপজেলা মোড়েলগঞ্জের অসহায়, গরীব, দুস্থ ও শিশুদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সহায়তা দেওয়া হয়েছে।এছাড়াও স্থানীয় জেলেদের নিয়ে মৎস্য সম্পদ সংরক্ষণে জনসচেতনতামূলক সভা করেছে কোস্টগার্ড।

মোংলা কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের স্টাফ অফিসার (গোয়েন্দা) লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এম মামুনুর রহমান জানান, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই অদ্যবধি বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড উপকূল ও চরাঞ্চলের মানুষের বিভিন্ন প্রয়োজনে এগিয়ে এসেছে। উপকূল এবং চরাঞ্চলের কর্মহীন ও দুঃস্থ মানুষের প্রয়োজনের তুলনায় চিকিৎসা সেবা খুবই অপ্রতুল। তাই দরিদ্রের চিকিৎসা সেবায় এগিয়ে আসে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড।

এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার ২৭ ডিসেম্বর সকালে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের উদ্যোগে বাগেরহাট জেলার মোরেলগঞ্জ থানার অর্ন্তগত দোনা, সোলামবাড়িয়া এবং পাতাবাড়িয়া তৎসংলগ্ন এলাকায় গমন করে এবং দুপুর ১২টা হতে আড়াইচা পর্যন্ত মেডিকেল ক্যাম্পেইন এর মাধ্যমে সর্বমোট ১৬৭ জন অসহায়, গরীব, দুঃস্থ ও শিশুদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও প্রয়োজনীয় ঔষধ সামগ্রী প্রদান করেন। উক্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা ও প্রয়োজনীয় ঔষধ সামগ্রী প্রদান অনুষ্ঠানে সিনিয়র মেডিকেল অফিসার সার্জন লেফটেন্যান্ট কমান্ডার জেনিফার বিনতে ইয়াসিন, এএমসি উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও নিবার্হী কর্মকর্তা বিসিজিএস সোনার বাংলা লেফটেন্যান্ট ইকবাল হোসেন, (এক্স), বিএন সহ অন্যান্য কর্মকর্তাগণ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও সকাল ১১ হতে দুপুর ১২টা পর্যন্ত মোরেলগঞ্জের কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের অধীনস্থ বিসিজি স্টেশন শরণখোলায় লেফটেন্যান্ট ইকবাল হোসেন, (এক্স), বিএন কর্তৃক উপকূলীয় ও তৎসংলগ্ন অঞ্চলে অবৈধ মৎস্য আহরণ, মাদক ও মানব পাচার রোধ, অবৈধ জালের ব্যবহার, বনজ সম্পদ রক্ষা, নৌযান ও নৌপথে জানমালের নিরাপত্তা বিষয়ে স্থানীয় জেলে, মাঝি ও পেশাজীবিদের সচেতনতা বৃদ্ধিতে জনসচেতনতামূলক বক্তব্য প্রদান করেন। জনসচেতনামূলক সভায় স্থানীয় প্রশাসন, বনবিভাগের প্রতিনিধি এবং স্থানীয় জনগন উপস্থিত ছিলেন।

তিনি আরও বলেন, কোস্টগার্ড পশ্চিম জোনের এখতিয়ারভূক্ত এলাকাসমূহে বিভিন্ন মেডিকেল ক্যাম্পেইন এবং জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা, আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রন ও বন্যপ্রাণী রক্ষা পাশাপাশি সুন্দরবনে জলদস্যুতা, বনদস্যুতা, ডাকাতি দমন, মাদক নিয়ন্ত্রন ও জননিরাপত্তায় পাশাপাশি উপকূলীয় নদী ও সমুদ্র এলাকায় যে কোন ধরনের উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

আরও পড়ুন :আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোর পূর্বক জমি দখল

জনপ্রিয়