নরসিংদীতে একই পরিবারের দগ্ধ ৪, ঢামেকে ভর্তি

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, এপ্রিল ৯, ২০১৯ ৫:৩৫:১০ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক: নরসিংদীর রায়পুরায় জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে একই পরিবারের চারজন অগ্নিদগ্ধ হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার (৯ ‍এপ্রিল) ভোরে এ ঘটনা ঘটে। ‍এ ঘটনার পর প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে প্রথমে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসকের পরামর্শে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

অগ্নিদগ্ধ চারজন হলেন-৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী প্রীতি আক্তার (১১), অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুইটি আক্তার (১৩) ও এসএসসি পরীক্ষার্থী মুক্তামনি (১৬)। তাদের সঙ্গে আরও দগ্ধ হয়েছেন তাদের ফুফু খাতুন্নেছা (৬০)।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, পাশের বাড়ির সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষরা তাদের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

ঢাকা মেডিকেল বার্ন ইউনিটের মেডিকেল অফিসার ডা. এনায়েত কবির বলেন, রায়পুরা থেকে চারজন দগ্ধ রোগী এসেছে। তাদের সবার দুই হাতসহ মুখ ও শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। এর মধ্যে খাতুন্নেছার শরীরের ১২ শতাংশ, প্রীতির ১৫ শতাংশ, মুক্তামনির ১০ শতাংশ ও সুইটির শরীরের ১৫ শতাংশ আগুনে দগ্ধ হয়েছে।

দগ্ধ মুক্তামনি জানান, প্রতিবেশী শিপন, কাজলদের সঙ্গে দীর্ঘ দিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। সেই বিরোধের জের ধরে কয়েক বছর আগে মিথ্যা হত্যা মামলা দেয়া হয় আমার দুই ভাই সোহাগ ও বিপ্লবের বিরুদ্ধে। তারা এখনও পালিয়ে বেড়াচ্ছে। গত ডিসেম্বরে বাবা (শামছুল হক) মারা যান। তারপর থেকে আমাদের মেরে ফেলার হুমকি দিতে থাকে তারা।

মুক্তমনি আরও জানান, মঙ্গলবার ভোরে যখন সবাই ঘুমিয়ে ছিলেন। তখন শিপন, কাজল, রবিন, লোকমানসহ কয়েকজন এসে তাদের ঘরে বোমা মেরে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এ বিষয়ে রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কবির বলেন, যারা দগ্ধ হয়েছেন, এলাকায় তাদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে কোনো বিরোধ নেই বলেই জানি। কিছুদিন আগে এলাকায় পরপর দুইটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সেই হত্যা মামলার আসামি এদের দুই ভাই সোহাগ ও বিপ্লব। সেই ঘটনার জের ধরে ঘটনাটি ঘটতে পারে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

জনপ্রিয়