নিরাপদ হোক ঈদযাত্রা

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : মঙ্গলবার, জুন ৪, ২০১৯ ৪:১৯:৩৪ অপরাহ্ণ

পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে প্রায় অর্ধ কোটিরও বেশি লোক ঈদ উপলক্ষে রাজধানী ঢাকা ছেড়ে যাবেন। এছাড়া বিভাগীয় ও জেলা শহরে চাকরিজীবীরা নাড়ির টানে বাড়ি গেছেন ঈদের আনন্দ স্বজনদের সাথে ভাগাভাগি করে নিতে। এই ঈদযাত্রায় প্রায় প্রতিবছরই ভীষণ বিড়ম্বনার স্বীকার হতে হয় লক্ষ লক্ষ মানুষকে। শত ঝঁক্কি ঝামেলা সহ্য করে বাড়ি যেতে হয় মাটির টানে, নাড়ির টানে।

বাস, ট্রেন, লঞ্চ। সব জায়গায়ই থাকে হাজারো বিড়ম্বনা। সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিবারই যাত্রীদের আশ্বস্ত করলেও বাস্তবে তার দেখা মেলে না যাত্রাপথে। বাস মালিকেরা আদায় করেন বেশি ভাড়া। ট্রেনের টিকেট হয়ে যায় উধাও। আর লঞ্চের টিকেট পাওয়া তো রীতিমত ভাগ্যের ব্যাপার।

চলমান পত্রিকার আরো খবর পড়ুন>>

ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার কে এই সুন্দরী?

কেমন পুরুষ পছন্দ বাংলাদেশি মেয়েদের?

জাপার এমপিকে শোকজ, দলের ভিতর তোলপাড়

আড়ংকে জরিমানা করা সেই অফিসারের বদলি

টিকেট সংগ্রহ হলেও রাজপথে দেখা দেয় দীর্ঘ যানজট। ট্রেনে উঠতে হয় রীতিমত যুদ্ধ করে। আর লঞ্চ উঠা! সে তো সমুদ্র জয়ের মতো। লঞ্চে লোক তোলা হয় ধারণ ক্ষমতার অনেক বেশি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীরা ওঠেন ট্রেনের ছাদে, বাসের ছাদে। ঘটে নানা দুর্ঘটনা। প্রাণহানির ঘটনাও ঘটে এ সময়। তারপর ঈদে বাড়ি যেতেই হবে স্বজনের কাছে। তাঁদের সেই যাত্রা নিরাপদ হোক সেটাই প্রত্যাশিত।

বাড়ি যাওয়া মানুষের শহরের বাসা তালাবদ্ধ থাকলেও নিরাপত্তার অভাব থেকেই যায়। বেড়ে যায় চুরি, ডাকাতি। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিবৃতির মাধ্যমে শহরকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও বাস্তবতায় দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। ঈদের আনন্দ শেষে বাসায় ফিরে অনেকেই দেখেন বাসায় চুরি হয়েছে। তখন ঈদের আনন্দের রেশ মূহূর্তের মধ্যেই ম্লান হয়ে যায়। বিষয়টির প্রতি প্রশাসনকে নজরদারি আরও বাড়াতে হবে।

সীয়াম সাধনার মাধ্যমে যে শিক্ষা আমরা পেয়েছি, সে শিক্ষায় আগামী পথ চলতে হবে। এই পৃথিবী এবং পরবর্তী পৃথিবীর মুক্তির জন্য সীয়ামের শিক্ষা হোক আমাদের আগামীর ব্রত।

বাড়ির যাত্রাপথ আনন্দময় এবং নিরাপদে ফিরে আসুক প্রতিটি মানুষ। চলমান বার্তার পক্ষ থেকে এর সকল পাঠক, বিজ্ঞাপনদাতা, শুভানুধ্যায়ী তথা দেশবাসীর জন্য রইল পবিত্র শুভেচ্ছা। ঈদ-উল-ফিতর সবার জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি- এই কামনায় সবাইকে জানাই ঈদ মোবারক।

আরও পড়ুন :এটিএম বুথের নিরাপত্তায় শঙ্কিত গ্রাহকেরা

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ

জনপ্রিয়