বগুড়া-৬ আসনে উপ-নির্বাচন; বিএনপি’র জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, মে ৯, ২০১৯ ১১:০৪:৪২ পূর্বাহ্ণ
Reza

রেজা চৌধুরী :
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ না নেওয়ায় বগুড়া ৬ আসন শূন্য হয়েছে। এই শূন্য আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৪শে জুন। নির্বাচন কমিশন শূন্য ঐ আসনে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। উপ-নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে কি না তা নিয়ে শুরু হয়েছে অনিশ্চয়তা। যদিও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন নির্বাচনের সিদ্ধান্ত দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের বৈঠকে নেওয়া হবে।

বগুড়া ৬ আসনটি খালেদা জিয়ার আসন হিসেবে পরিচিত ছিল। কিন্তু কারাবন্দি খালেদা জিয়া একাদশ সংসদ নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষিত হওয়ায় ঐ আসন থেকে মির্জা ফখরুল নির্বাচনে অংশ নেন। এই আসনের উপ-নির্বাচনে অংশ নেওয়া বা না-নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ বেশ চ্যালেঞ্জ তৈরি হয়েছে বিএনপির জন্য।

যে অবস্থায় বিএনপি এখন পড়েছে তাতে সিদ্ধান্ত নেওয়া এখন তাদের জন্য অনেকটাই কঠিন। কারণ, জাতীয় নির্বাচন হয়নি বলে দলটি উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিল না, এখন তারা যদি উপ-নির্বাচনে অংশ নেয় তা হবে তাদের জন্য স্ববিরোধী।

এই আসনের উপনির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ করার মানে হবে তাদের “১৮০ ডিগ্রি টার্ন” করার মতো। যারা বলছে নির্বাচন আমরা মানিনা তারা ঘুরে গিয়ে আবার উপনির্বাচনে অংশ নেবে সেটা তো বিএনপির ইমেজের সাংঘাতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

বগুড়া ৬ আসনে জয়লাভ করেও আলমগীর শপথ নেন নি। তার দল থেকে জয়ী হওয়া অপর চারজন এমপি দলের সম্মতিতেই শপথ নিয়েছেন। বিএনপির সংসদ সদস্যরা যে সংসদে গেছে সেটা নিয়ে জনমনে বা বিএনপি সম্পর্কে এক ধরনের নেতিবাচক ধারণার জন্ম দিয়েছে।

যদিও ফখরুল ইসলাম দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সিদ্ধান্তের কথা উল্লেখ করেছেন, তবে দলটির নেতাদের কতটা সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে সেটা প্রশ্ন থেকেই যায়।

বর্তমানে বাংলাদেশের রাজনীতি যে ধারা তৈরি হয়েছে তা থেকে বিশ্লেষণধর্মী মন্তব্য করা না গেলেও এটা নি:সন্দেহে বলা যায় যে, বগুড়া উপ-নির্বাচন নিয়ে বিএনপি একটি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে। দলটি কীভাবে সে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে, তাই এখন দেখার বিষয়।

আরও পড়ুন : শুধু আমল নয়, সুস্বাস্থ্যের জন্যও রোজার গুণ অসাধারণ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

জনপ্রিয়