বার কাউন্সিল নির্বাচনে সদস্য পদের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অ্যাডঃ একরামুল হক রবি

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, মে ২২, ২০২২ ৮:৪৩:৩২ অপরাহ্ণ

মোঃ আব্দুল খালেক, বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে প্রতিদন্দ্বিতায় করছেন উত্তরবঙ্গের পঞ্চগড় জেলার তেজদীপ্ত উদীয়মান তরুন আইনজীবী অ্যাডভোকেট একরামুল হক রবি।

একরামুল হক রবি ১৯৭১ সালে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় একটি মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারের জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নিজের পেশার পাশাপাশি সমগ্র দেশের আইনজীবীদের সামগ্রিককল্যাণে প্রতিশ্রতিবদ্ধ হয়ে সে আগামী ২৫ মে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল নির্বাচনে (বেলট নং-২১) সাধারণ আসনের একজন প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি নির্বাচিত হলে বিজ্ঞ আইনজীবীগণে বেনোভোলেন্ট ফান্ড বৃদ্ধিসহ সকল কল্যাণকর কাজ করবেন বলে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আসন্ন নির্বাচনে সকল আইনজীবীগণের নিকট দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেছেন।

সংক্ষিপ্ত জীবনী:
অ্যাডভোকেট একরামুল হক রবির দাদা মুন্সী দবির উদ্দীন দেশবিভাগের আগে ভারত ও পাকিস্তান বিভূক্ত সময় পঞ্চগড় জেলা ভারতের অন্তর্ভুত করার সময়ে ডা. মোহাম্মদ সোলিমুল্লাহর নেতৃত্বে ওই আন্দোলনে শরিক ছিলেন। পরবর্তীতে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর আওয়ামী মুসলিম লীগ থেকে আওয়ামীলীগ গঠন হলে আওয়ামী লীগ রাজনীতির সংগে জড়িয়ে পড়েন। আওয়ামীলীগের সকল আন্দোলন সংগ্রামে পাশে থেকে জাতির জনকের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) সমবেত জনসমুদ্রে জাতির উদ্দেশে ঐতিহাসিক ভাষণ দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর এই ভাষণ জাতিকে অনুপ্রাণিত করে স্বাধীনতার জন্য সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে। সেই দিন অ্যাডভোকেট একরামুল হক রবির দাদা মুন্সী দবির উদ্দীন তাঁর দুই ছেলেকে এবং একমাত্র শ্যালককেও মুক্তিযুদ্ধে পাঠান। স্বাধীনতার স্বপক্ষের ও মুক্তি চেতনাবাহী এই পরিবারে ১৯৭১ সালে অ্যাডভোকেট মোঃ একরামুল হক (রবি) জন্মগ্রহণ করেন। তিনি জগন্নাত কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান, জাতীয় বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে ল গ্রাজুয়েশন, নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলএম এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পপুলেশন সায়েন্সেস থেকে মাস্টার ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জার্মান ও আরবি ভাষার কোর্স সম্পন্ন করেন। তার চাচা বিজ্ঞ অ্যাডভোকেট আছাদুল্লাহ এর সাহচর্যে থেকে আইন পেশায় আগ্রহী হয়ে বর্তমানে ঢাকা জেলা আদালত এবং প্রশাসনিক আপীল আদালতে আইনপেশায় নিয়োজিত আছেন। অ্যাডভোকেট একরামুল হক রবি ২০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত নিষ্ঠা ও সততার সাথে বর্তমান রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, আওয়ামীলীগ পঞ্চগড় জেলা শাখার সভাপতি, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক, বিশিষ্ট আইনজীবী অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজন মহোদয়ের এপিএস এর দায়িত্বে ছিলেন।

আরও পড়ুন : বোদায় শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

জনপ্রিয়