বিদ্যুৎ বিল বকেয়ার অভিযোগে সংযোগ বিচ্ছিন্ন, মারা গেলো ৬০০ মুরগি

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, এপ্রিল ৮, ২০২২ ১০:২৫:৩৭ অপরাহ্ণ

এম হামিদুর রহমান লিমন, রংপুর ব্যুরো প্রধানঃ
বিদ্যুৎ বিল বকেয়ার অভিযোগে সংযোগ বিচ্ছিন্ন, মারা গেলো ৬০০ মুরগি রংপুরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় মারা গেছে ৬০০ মুরগি।

রংপুর সদর উপজেলার চন্দনপাট ইউনিয়নের এক খামারির বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকার অভিযোগে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস। এতে গরম সহ্য করতে না পেরে খামারের ৬০০ মুরগি মারা গেছে বলে দাবি করা হয়েছে।

এতে হাসানুর রহমান (২২) নামে ওই খামারির প্রায় দুই লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেনি। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী। এছাড়া বিদ্যুৎ বিল বকেয়া না থাকার দাবিও করছেন তিনি।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, চন্দনপাট ইউনিয়নের কাজীপাড়ায় ব্রয়লার মুরগির খামার গড়ে তোলেন হাসানুর। গত ফেব্রুয়ারিতে ৭ হাজার ২০০ টাকা বকেয়া বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ সাপেক্ষে নতুন করে সংযোগ নিয়ে মুরগির খামার শুরু করেন তিনি।

এদিকে, ২৪ হাজার টাকা বকেয়া বিল থাকার অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) বিকেলে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের লোকজন এসে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। এসময় হাসানুর বাড়িতে ছিলেন না এবং তাকে না জানিয়েই সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। পরে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন দেখেন হাসানুর। এ অবস্থায় শুক্রবার সকালে ঘুম থেকে উঠে তিনি দেখেন যে, খামারে থাকা ৬০০ মুরগি গরম সহ্য করতে না পেরে মারা গেছে। পরে বিকেলে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে হাসানুর রহমান বলেন, কোনো বিদ্যুৎ বিল বকেয়া নেই। আগের সব বকেয়া পরিশোধ করে নতুন সংযোগ নিয়ে খামার গড়ে তুলি। কিন্তু বিদ্যুৎ অফিস থেকে না জানিয়েই সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। এতে প্রায় দুই লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। এখন পথে বসার উপক্রম।

জানতে চাইলে রংপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর জেনারেল ম্যানেজার হারুন অর রশিদ বলেন, বিদ্যুৎ বিল বকেয়া না থাকার বিষয়টি সত্য নয়। লেজার বুকে তার ২৪ হাজার টাকা বকেয়া রয়েছে। হিট লিস্টে নাম থাকায় হেড অফিসের নির্দেশনা অনুযায়ী সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে সদর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান বলেন, বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

আরো পড়ুন : রংপুরের উন্নয়নে গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক বিএমএসএফের আলোচনা

জনপ্রিয়