ভাইস-প্রেসিডেন্টকে ভোট বাতিলের চাপ দিয়েছিলেন ট্রাম্প

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, জুন ১৭, ২০২২ ১১:১৯:১৭ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক:
যুক্তরাষ্ট্রে ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল বাতিলের জন্য সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তৎকালীন ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকে অবৈধভাবে চাপ দিয়েছিলেন। আর এটি গতবছর ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গার সময় পেন্সকে বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে ফেলেছিল—এমনটাই বলছে মার্কিন কংগ্রেসের একটি প্যানেল। খবর বিবিসির।

কংগ্রেসের আইনপ্রণেতারা ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলের দাঙ্গার ঘটনা নিয়ে শুনানির সময় মাইক পেন্সের একজন সহকারীর বক্তব্য শুনছিলেন। সেখানে তিনি জানিয়েছেন—কীভাবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিজয় নস্যাৎ করে দেওয়ার চেষ্টা করছিল হোয়াইট হাউস।

শুনানি কমিটির চেয়ারম্যান বেনি থম্পসন বলেছেন, ট্রাম্পের কাছে পেন্স নতি স্বীকার না করার মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্র ট্রাম্পের পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দিয়েছে। কংগ্রেসের এ কমিটি সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য অভ্যুত্থানচেষ্টার অভিযোগ তুলেছে।

২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি মার্কিন কংগ্রেস ভবনে হামলা চালিয়েছিলেন ট্রাম্প সমর্থকেরা। সে সময় কংগ্রেস সদস্যেরা জো বাইডেনের জয়কে আনুষ্ঠানিক করার প্রক্রিয়ায় অংশ নিচ্ছিলেন।

তবে, ডোনাল্ড ট্রাম্প কংগ্রেস কমিটির শুনানিকে ‘ক্যাঙ্গারু কোর্ট’ আখ্যা দিয়ে করে তিরস্কার করেছেন। তাঁর দাবি—নভেম্বরের মধ্যবর্তী নির্বাচন থেকে মার্কিন জনগণের দৃষ্টি সরাতেই এসব করা হচ্ছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার ডেমোক্র্যাট নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস কমিটিতে তৃতীয় দফার শুনানি হয়েছে। সেখানে মূলত প্রেসিডেন্টের নির্বাচিত হওয়ার সাংবিধানিক প্রক্রিয়ার ওপর দৃষ্টি দেওয়া হয়েছিল।

ডোনাল্ড ট্রাম্প গত বছর প্রকাশ্যেই বলেছিলেন যে, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল কংগ্রেসে অনুমোদনের প্রক্রিয়া স্থগিত করার ক্ষমতা ভাইস-প্রেসিডেন্টের রয়েছে। যদিও আইন বিশেষজ্ঞরা ট্রাম্পের এ দাবি নাকচ করে দেন।

মাইক পেন্সের সে সময়ের আইনজীবী গ্রেগ জ্যাকব শুনানি কমিটিকে বলেছেন—তাঁদের ‘পর্যালোচনা ও সাধারণ বোধবুদ্ধিই’ মাইক পেন্সকে নিশ্চিত করতে সহায়তা করেছিল যে, নির্বাচনের ফল উলটে দেওয়ার কোনো ক্ষমতা তাঁর নেই।

সাবেক জজ এবং পেন্সের অনানুষ্ঠানিক সহকারী মাইকেল লুটিগ শুনানি কমিটিকে বলেছেন, পেন্স যদি ট্রাম্পের কথা শুনতেন, তাহলে যুক্তরাষ্ট্রকে চরম সাংবিধানিক সংকটে পড়তে হতো।

বৃহস্পতিবারের শুনানির সময় গত বছর ক্যাপিটল হিলে পেন্সের ফাঁসি চেয়ে স্লোগান দেওয়ার একটি ফুটেজ দেখানো হয়। ট্রাম্প এক বক্তৃতায় পেন্সকে ‘সঠিক কাজ’ করার পরামর্শ দেওয়া পরের ঘটনা ছিল এটি।

শুনানি কমিটির সদস্যেরা বলেছেন—ওই সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প বারবার টুইট করে মাইক পেন্সের সাহসিকতা নিয়ে কটাক্ষ করেছেন। আর ট্রাম্প এমন সময় কাজটি করেছিলেন, যখন ক্যাপিটল হিলে ভাঙচুর চলছিল।

বেনি থম্পসন বলছেন, ‘পেন্স (ট্রাম্পের) চাপ প্রতিরোধ করেছিলেন। কারণ, তিনি জানতেন—এটি অবৈধ। তিনি জানতেন—এটি ভুল। তাঁর এ সাহসিকতা তাঁকে মারাত্মক বিপদে ফেলেছিল।’

ক্যাপিটল ভবনে তাণ্ডব চলার সময় ভেতরেই কাজ করছিলেন মাইক পেন্স। গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন কীভাবে পেন্স এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের নিরাপদে সরিয়ে নিয়েছিলেন, সেসব ছবিও দেখানো হয় শুনানির সময়।

আরও পড়ুন : দনবাসের উপর নির্ভর করছে যুদ্ধের গতিপথ : জেলেনস্কি

জনপ্রিয়