মঠবাড়িয়ায় স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিবাহ রুখে দিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, জুন ১১, ২০২২ ৫:৫৮:১৬ অপরাহ্ণ

মজিবর,রহমান, পিরোজপুর প্রতিনিধি:
পিরোজপুর মঠবাড়িয়া উপজেলায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিবাহ রুখে দিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট । শুক্রবার( ১০ জুন) রাত ১১টায় উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামে এ বাল্যবিবাহ রুখে দেয়া হয়।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গুলিশাখালী ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের দুর্গাপুর গ্রামের ইদ্রিস মাতবরের ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া নাবালক মেয়ের সাথে পার্শ্ববর্তী হোগলপাতি গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী খোকন মিয়ার বিয়ের আয়োজন চলছিলো এমন সংবাদের ভিওিতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সাখাওয়াত জামিল সৈকত ঘটনাস্থলে ছুটে যান।উপজেলা প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বরপক্ষ পালিয়ে যায় ।

পরে বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাখাওয়াত জামিল সৈকত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে বাল্যবিবাহ রুখে দিয়ে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ২০১৭ অনুযায়ী নাবালকের অভিভাবকের মুচলেকা গ্রহণ করর ছেড়ে দেন। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেট সাখাওয়াত জামিল সৈকত জানান, টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি স্বাস্থ্য ও পরিবেশগত উন্নয়নের উপর জোর দেওয়া জরুরি। বাল্যবিবাহ রোধে মান্যবর জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সুযোগ্য নেতৃত্বে উপজেলা প্রশাসন মাঠে তৎপর রয়েছে। যেখানেই বাল্যবিবাহ সেখানেই উপজেলা প্রশাসন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিচালনার সময় মঠবাড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইব্রাহীম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুপ কুমার পাল, ১০ নং হলতা গুলশাখালী ইউপি চেয়ারম্যানরা রিয়াজুল আলম ঝনো উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত: উপজেলা প্রশাসন এর আগেও উপজেলার খেতা ছিডা ও কচুবাড়িয়া গ্রামের পঞ্চম এবং সপ্তম শ্রেণীর পড়ুয়া দুই স্কুল ছাত্রীর বাল্য বিবাহ রুখে দেন।

আরও পড়ুন : মঠবাড়িয়ায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডিজিটাল এক্স-রে মেশিনের উদ্বোধন

জনপ্রিয়