মঠবাড়িয়ায় মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানির অভিযোগ

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ৭, ২০২২ ৮:১৮:৫৩ অপরাহ্ণ

মজিবর রহমান, পিরোজপুর প্রতিনিধি
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় জমি সংক্রান্ত বিবাদে প্রতিপক্ষ কর্তৃক দোকান লুট, ভাংচুর ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানির অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার (৬ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় মঠবাড়িয়া উপজেলা প্রেস ক্লাবে উত্তর সোনাখালী গ্রামের ৭ নং ওয়ার্ডের মৃত্যু আঃ কাদের এর পুত্র ভুমি মালিক আনোয়ারুল হক তার জমির বর্গাদার কামাল ও রাসেলের ওপর গত ২ এপ্রিল ২০২২ তারিখ সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, উপজেলার উত্তর সোনাখালী এস এ ৩৩২ নং খতিয়ানের এস এ ৯৬৭ নং দাগের সম্পওি নিয়ে একই এলাকার প্রতিপক্ষ হিরোন বয়াতী,হেমায়েত বয়াতী,মান্নান বয়াতী,কালু বয়াতী সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলে আসছিল।

ওই বিরোধের জেরে মঠবাড়িয়া জরিপ কার্যালয়ে সম্পওির দখল নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা দখল সরেজমিনে পরিদর্শন করতে গেলে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে প্রতিপক্ষরা লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে প্রতিবন্ধি কামাল প্যাদা ও তার পূত্র রাসেল প্যাদাকে গুরুতর জখম করে তাদের দোকান ভাংচুর ও লুটপাট চালায়।

তিনি আরো বলেন, এ ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে দুই মাস পূর্বে হিরন বয়াতী ট্রাক্টার দিয়ে জমি চাষ করতে গিয়ে তার বাম হাত ভেঙ্গে যায়। ওই ভাঙ্গা হাতকে পুঁজি করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেন এবং পুরানো এক্সে দেখিয়ে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আমাকে প্রধান আসামি একটি মামলা দায়ের করে।ওই মামলাটি বিজ্ঞ বিচারিক হাকিম মঠবাড়িয়া থানার ওসিকে এজাহার হিসেবে গন্য করার নিদের্শ দেন।

উপরন্ত ওই হামলায় প্রতিবন্ধী কামাল হোসেনের বাম চোখে লোহার রডের আঘাতে চোখটি নষ্ট হওয়ার উপক্রম দেখা দিয়েছে এবং বর্তমানে সে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল সেবাচিম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

তিনি তার জমির বর্গাদার কামাল ও তার ছেলে রাসেলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ন্যায় বিচার ও মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতির জন্য ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

আরো পড়ুন : মঠবাড়িয়া উপজেলাকে দ্বিখণ্ডিত করার অপচেষ্টার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ

জনপ্রিয়