মঠবাড়িয়ায় সাংবাদিকদের উপজেলা প্রশাসনের সকল সংবাদ বর্জনের ঘোষণা

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, মে ১৫, ২০১৯ ১:৫০:৫৫ অপরাহ্ণ
Pirojpur

মজিবর রহমান, পিরোজপুর প্রতিনিধি:
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় উপজেলা প্রশাসনের সকল সংবাদ বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন সাংবাদিকদের তিনটি সংগঠন। এ সংগঠন তিনটি হলো,উপজেলা প্রেস ক্লাব, রিপোর্টাস ক্লাব ও সাংবাদিক সমিতি। মঠবাড়িয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জি এম সরফরাজ এর বিরুদ্ধে অসৌজন্যমূলক আচরণ ও নিরপেক্ষ ভুমিকা পালন না করার অভিযোগ এনে সাংবাদিকরা এ সংবাদ বর্জন করে।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে স্হানীয় হাতেম কালী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার ৮০ জন লোক নিয়ে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী এসডিজি বাস্তবায়ন শীর্ষক একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন  করলেও দেশের প্রথম সারির ইলেকট্রনিক ও প্রিংটিং মিডিয়ার সাংবাদিকদের নিমন্ত্রণ না করে গুটিকয়েক মুখ চেনা সাংবাদিকে ওই অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ পত্র দেন ইউএনও।

অনুষ্ঠানে পিরোজপুর জেলা প্রশাসক আবু আলী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ ঘটনায় সাংবাদিকদের বৃহৎ অংশ ক্ষুব্ধ হয়ে সোমবার রাতে রিপোটার্স ক্লাবে এক জরুরী বৈঠকে করে উপজেলা প্রশাসনের সকল সংবাদ বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন। সভায় রিপোটার্স ক্লাবের সভাপতি নাজমুল আহসান কবিরের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. মজিবর রহমান, রিপোটার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুল আকন, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ইসমাইল হোসেন হাওলাদার, রিপোটার্স ক্লাবের সহ-সভাপতি জুলফিকার আমীন সোহেল, যুগ্ম সম্পাদক মো. ফারুক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা কামাল বুলেট প্রমুখ।

রিপোটার্স ক্লাবের সভাপতি নাজমুল আহসান কবির বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বক্তব্যে মনে হচ্ছে, বাংলাদেশ টুডে দৈনিক সংবাদ, মানবজমিন, যায়যায়দিন, মানবকন্ঠ, আমাদের নতুন সময়, দৈনিক বর্তমান, আলোকিত বাংলাদেশ, ইনকিলাব, নয়া দিগন্ত, বাংলাদেশের খবর, আমার সংবাদ, আমাদের কন্ঠ জাতীয় পত্রিকাগুলো তার কাছে গুরুত্বহীন। এসকল পত্রিকার প্রতিনিধিদের তিনি সাংবাদিক মনে করেন না।

উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. মজিবর রহমান বলেন, মঠবাড়িয়ায় সাংবাদিকদের চারটি সংগঠন থাকলেও ইউএনও একটি সংগঠনকে গুরুত্ব দেয়ায় তার নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেখা দিয়েছে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিএম সরফরাজ বলেন, আমি সাংবাদিক হিসেবে যাদের মনে করেছি তাদেরকেই নিমন্ত্রণ করেছি।
জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, দাওয়াতে সমন্বয় থাকা উচিৎ ছিলো।

আরও পড়ুন : মাশরাফি বিন মুর্তজার অনন্য কীর্তি

Leave a Reply

Your email address will not be published.

জনপ্রিয়