মুকুলে ছেয়ে গেছে রায়গঞ্জের আম্রকানন

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, জানুয়ারি ৩০, ২০২২ ৭:০০:৫৮ অপরাহ্ণ

রেজাউল করিম, সিরাজগঞ্জ জেলা সংবাদদাতা
রায়গঞ্জ উপজেলার সারি সারি আম গাছের বাগানগুলো হলুদ আর সবুজের মহামিলনে ভোরে উঠেছে। মুকুলে ছেয়ে গেছে প্রতিটি ডালপালা। চারদিকে ছড়াচ্ছে সেই মুকুলের সুবাসিত পাগল করা সুঘ্রাণ। মাঘের শেষে এখন আমের মুকুলে ছেয়ে গেছে সব আম গাছ। আমের বনের ঘ্রাণে মাতাল সবাই। বাতাসে মিশে সৃষ্টি করেছে মৌ মৌ গন্ধ। যে গন্ধ মানুষের মনকে বিমোহিত করে।

পাশা-পাশি মধুমাসের আগমনী বার্তা শোনাচ্ছে আমের মুকুল। তবে আমের ফলন নির্ভর করছে আবহাওয়ার ওপর। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে এ বছর আমের বাম্পার ফলনের আশা করছেন রায়গঞ্জ উপজেলার বাগান মালিকরা।

মৌসুমের শুরুতে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় মুকুলে ভরে গেছে বাগানসহ ব্যক্তি উদ্যোগে লাগানো আম গাছগুলোতে। এর মধ্যে আম রুপালি, গোপালভোগ, ফজলি অন্যতম। গাছের পুরো মুকুল ফুটতে আরও কয়েকদিন লাগবে বলে জানান বাগান মালিক আব্দুল কুদ্দুস।

রবিবার রায়গঞ্জ উপজেলার একজন বাগান মালিক বলেন, বড় আকারের চেয়ে ছোট ও মাঝারি আকারের গাছে বেশি মুকুল ফুটেছে। আমি প্রতিদিন বিভিন্ন আম বাগান গুলো পরিদর্শন করছি। এখনও কোনো বাগানে সমস্যা দেখা যায়নি। তারপরেও চাষিদের হপার বা ফুদকী পোকা যারা মুকুলের ক্ষতি করে। এ পোকা দমনে বালাইনাশক স্প্রে করছে। সেই সাথে সালফার জাতীয় ছত্রাক নাশক স্প্রে করছে। কারণ শুরু থেকে মুকুলের পরিচর্চা করতে পারলে এবার আমের ফলন বাম্পার হবে। হপার পোকা মুকুলের রস চুষে। এ জন্য মুকুল সবুজ থাকা অবস্থায় সাইপার মেথ্রিন গ্রুপের কীটনাশক রিপকর্ড/ফাইটার স্প্রে করে থাকে তারাএবং পচনের মেনকোজেবও মেটালক্সিল গ্রুপের ছত্রাক নাশক রিডোমিল গোল্ড ও ইন্ড্রফিল স্প্রে করেন তারা।

আরো পড়ুন : সিরাজগঞ্জে পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে টিকা কার্যক্রম অনুষ্ঠিত

জনপ্রিয়