মোংলায় সদস্য পদে মোঃ জলিল সিকদার নির্বাচিত

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, অক্টোবর ১৭, ২০২২ ৬:২৭:৩৭ অপরাহ্ণ

মাসুদ রানা, মোংলা প্রতিনিধি:
বাগেরহাট জেলা পরিষদ নির্বাচনের মোংলা উপজেলার ৭নং এয়ার্ড সদস্য পদে মোঃ জলিল সিকদার টিউবয়েল প্রতিক নিয়ে ৯৪ ভোটের মধ্যে ৩৯ ভোট পেয়ে বেসরকারী ভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদন্ধী সাবেক পৌর কমিশনার হাবিবুর রহমান পেয়েছেন ৩৩ ভোট। ভোট গননা শেষে সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বেসরকারী ভাবে বিজয়ী ঘোষনা করেণ এ নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা সাব রেজিস্টার কর্মকর্তা মোঃ জুবায়ের হোসেন। তবে অপ্রতিকর ঘটনা এড়াতে শহরের কোন মিটিং মিছিল কিংবা আনন্দো উৎসব করা জাবেনা বলে জানিয়ে দেয় পুলিশ প্রশাসনের সিনিয়র এ এসপি মোঃ আসিব ইকবাল।

জেলা পরিষদ নির্বাচনের মোংলা উপজেলার ৭নং ওয়ার্ড সদস্য পদে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয় দুপুর সাড়ে ১২টায়। উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে সোমবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয় এ ভোট গ্রহণ, যা চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। তবে ভোটারদের ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে দুপুর সাড়ে ১২টায়, গননা বা অন্যান্য অফিসিয়াল কার্যক্রম শুরু করে দুপুর ২টার পর থেকে। মোংলা উপজেলায় ৯৪ জন ভোটারের মধ্যে ৯৩ জনই উপস্থিত হয়ে ভোটারা তাদের ভোটারাধিকার প্রয়োগ করেছে। আর বাকী এক জন মামলা জটিলতায় বাগেরহাট জেলহাজতে থাকার কারণে তিনি অনুপস্থিত রয়েছে।

এ নির্বাচন সকাল ৯টায় শুরু হলে সোয়া ৯টায় প্রথম ভোট প্রদান করেণ মোংলা পোর্ট পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আঃ রহমান। পরে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে সর্বশেষ ভোট দিতে যান মোংলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার। এবারের জেলা পরিষদের নির্বাচনে মোংলার সদস্য পদে প্রার্থী হয়ে তিনজন প্রতিদন্ধীতা করেছে। তারা হচ্ছে, মোঃ জলিল সিকদার টিউবয়েল প্রতিক, ভোট পেয়েছেন ৩৯টি, হাবিবুর রহমান তালা প্রতিক ভোট পেয়েছেন ৩৩টি ও মোঃ আরিফ ফকির হাতি প্রতিক ভোট পেয়েছেন ২১টি। মোংলা উপজেলায় ৯৪টি ভোটের মধ্যে ৯৩টি ভোট প্রোয়োগ হয়েছে। তার মধ্যে থেকে ৩৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয় মোঃ জলিল সিকদার। আর সংরক্ষীত নারী সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছে মাকছুদা আক্তার মুক্তা।

মোংলায় সদস্য পদে প্রতিদন্ধী ৩ জনই বর্তমান রাজনৈতিক দলের স্থানীয় নেতা তাই উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে এবারের জেলা পরিষোদ নির্বাচনে শান্তিপুর্ন পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন করেছে তারা। অফিসার্স ক্লাবে পৃথক দুইটি বুথে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দিয়েছেন এখানকার ভোটারা। এ নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্বে ছিলেন উপজেলা সাব রেজিস্টার কর্মকর্তা মোঃ জুবায়ের হোসেন সর্বশেষ নির্বাচিত প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষনা করেণ তিনি। এবং নির্বাচন পরিচালনা করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার, সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আসিফ ইকবাল ও মোংলা থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ মনিরুল ইসলাস সহ সংশ্লিষ্ট জেলা ও উপজেলার কর্মকর্তারা।

মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার বলেন, সকাল ৯টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ৬৬ জন পুরুষ ও ২৩ জন নারী ভোটারের সকলেই ভোট দিয়েছেন। এ নির্বাচনে অপ্রতিকার কোন ঘটনা ছাড়াই উৎসব মুখর পরিবেশে জেলা পরিষদ নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া ফলাফল ঘোষনার পর পরই শহরের পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। টহল রত অবস্থায় রয়েছে র‌্যাব ও পুলিশ। যাকে কোন প্রার্থী বা তাদের সমর্থকরা নির্বাচনের পরে কোন ঘটনা ঘটনাতে না পারে বলে জানায় তিনি।

আরও পড়ুন :বন্দর সৃষ্টির পর এই প্রথম মোংলায় ওলামা সম্মেলন

জনপ্রিয়