মোংলায় স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর ঘটনায় ২ জনের জেল, উৎকোচের বিনিময়ে মুক্তি পেলেন অভিযোগকারীনী

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : রবিবার, জুন ১৬, ২০১৯ ৯:১০:২৭ অপরাহ্ণ
Mongla

মাসুদ রানা, মোংলা প্রতিনিধি:
মোংলায় পর্যটনষ্পট মেরিন ড্রাইভে ঘুরতে এসে এক স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনার সাথে জরিত দুই যুবককে আটক করেছে মোংলা থানা পুলিশ। শনিবার দুপুরে মোংলা পৌর শহরের ফেরী ঘাটস্থ পশুর নদী পাড়ে শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়ামের পশ্চিম পাশের কাশবনের পাশে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে শনিবার রাতে থানায় মামলা দায়েরের পর আজ রবিবার আদালতের মাধ্যমে দু’জনকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

তবে ওই স্কুল ছাত্রী ও তার বন্ধুদের সারা দিন থানায় আটক রেখে রাত সাড়ে ১০টার দিকে উৎকোচের বিনিময় মুক্তি দেয়া হয় বলে জানায় স্কুল ছাত্রী খালা মাছুদা আক্তার।

চলমান বার্তার অন্যান্য খবর>>

বাজেটের অসঙ্গতি দূর করা হোক

আমেরিকা-ইরান যুদ্ধ কি আসন্ন? 

রাজনীতির সাথে ধর্মের কোনো সম্পর্ক নেই: মির্জা ফখরুল

থানার মামলা সুত্রে জানা যায়, চাদঁপাই ইউনিয়নের নারকেলতলা এলাকার দশম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রী মোংলার পশুর নদীর পাড়ে পর্যটন স্পট মেরীন ড্রাইভ রোড এলাকায় দুপুরের দিকে সহপাঠি বন্ধুদের সাথে ঘুরতে আসে।

ঘুরতে আসা বন্ধু বান্ধবীদের সাথে পর্যটন স্পটের পাশে দর্শনাথীদের বসার বেঞ্চে বসে গল্প করছিল। এক পর্যায়ে পিছন থেকে দুই যুবক এসে ঘুরতে আসা দর্শনার্থীদের সাথে বাকবিতান্ডায় জড়িয়ে পরে।

এতে ওই স্কুল ছাত্রী প্রতিবাদ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে তার সাথে থাকা বন্ধুদের উপর চড়াও হয়ে তাদের বেধড়ক মারপিট ও রক্তাক্ত জখম করে। এক পর্যায় স্কুল ছাত্রাকী জোরপুর্বক টেনে হেচড়ে শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়ামের পশ্চিম পাশের কাশবনে ঝোপের ভিতরে নিয়ে শ্লীলতাহানি ঘটায় ওই যুবকেরা।

এসময় স্কুল ছাত্রীসহ তাদের বন্ধুদের ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে সবাইকে উদ্ধার করে মোংলা থানা পুলিশকে অবহিত করে এবং বখাটে ওই ২ যুবকসহ তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে।

শনিবার রাতে স্কুল ছাত্রীর খালা মাছুদা আক্তার বাদী হয়ে জয়বাংলা সড়কের জহুরুল তালুকদারের ছেলে মোঃ রুবেল তালুকদার (৩০) ও সিগনাল টাওয়ার এলাকার সোহরাফ হোসেন’র ছেলে মোঃ কাওসার শেখ (৩০) এর বিরুদ্ধে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দয়েরের পর আজ রবিবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায় পুলিশ।

ওই সময় ঘুরতে আসা দর্শনার্থী আয়শা বেগমসহ অনেকেই বলেন, মোংলা এলাকায় ছুটির দিনে বা অবসর সময়ে বিনোদনের অন্য কোথাও যাওয়ার জায়গা না থাকায় আমরা মোংলার পর্যটন স্পট মেরীন ড্রাইভ রোড এলাকাও পশুর নদীর পাড়ে পরিবার পরিজন ও বন্ধু বান্ধব নিয়ে ঘুরতে আসি। কিন্ত মেরিন ড্রাইভ বা নদীর পাড়ে ঘুরে দেখারমত পর্যাপ্ত পরিবেশ থাকলেও ইদানিং বেশ কিছু দিন ধরে মাদকাসক্ত কিছু বখাটে যুবকদের কারনে এখানকার পরিবেশ নোংরা ও উত্তাপ্ত হয়ে উঠেছে।

এর মূল কারন, এখানে স্থানীয় কিছু উঠতি বয়সের যুবকরা বাংলামদ,ইয়াবা ও গাজাঁ বিক্রির নিরাপদ স্থান ভেবে সেবন ও বিক্রি করছে আর স্কুল ছাত্রী বা মেয়েদের দেখলেই খারাপ আচারন,ইভটিজিং,ঢিল ছোড়াসহ খারাপ খারাপ উক্তি করছে বলেও বহু অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। যা গত এক সপ্তাহ প্রায় ৩/৪টি ঘটনা ঘটেছে এই মেরিন ড্রাইভের বিভিন্ন এলাকায়।

শুক্রবার সন্ধ্যায় এ এলাকায় ঘুরতে আসা এক কলেজ ছাত্রীকে ইভটিজিং এর দায়ে ৩ যুবককে অর্থদন্ডও দেয়া হয়েছিল ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে। তবে অনেকেই বলছে, মেরিন ড্রাইভের পাশেই মোংলা থানা, কিন্ত প্রশাসনের কড়া নজরদারী না থাকার কারনে প্রতিনিয়ত এসব অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটছে। তারা আরো বলেন, মোংলার সবচেয়ে অর্কষনীয় পর্যটন স্পট মেরীন ড্রাইভ রোড এলাকা। এটি মোংলার পশুর নদীর তীর বয়ে গড়ে উঠেছে।

মোংলা শহরের সকল স্থায়ী বাসিন্ধা সহ বহু দর্শনার্থীরা এখানে বেড়াতে আসে। কিন্তু এখানে প্রশাসনের নজরদারী বাড়ানো দরকার। তা না হলে প্রতিনিয়ত এরকম ঘটনা বা নানা রকমের জটিলতা ঘটতেই থাকবে বলে তাদের ধারনা।

মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, নতুন ভাবে গড়ে উঠছে শেখ রাসেল ষ্টেডিয়াম ও পর্যটন স্পট মেরিন ড্রাইভ রোড়। এখানে বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ বিনোদনের জন্য ঘুরতে আসে। দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার জন্য শুক্র ও শনিবার নদীর তীরে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো থাকে। যাতে কেউ মটরসাইকেল বা অন্য কোন যান বাহন নিয়ে ডুকতে না পারে। শুক্রবার ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা ও রোববার দু’জনকে আটক করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। তবে স্কুল ছাত্রীর বা তার বন্ধুদের কাছ থেকে উৎকোচের বিষয়টি জানা নাই, সত্যতা পেলে ব্যাবস্থা নেয়ারও আশ্বাস দেন এ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন :

মোংলায় কলেজ ছাত্রীকে ইভটিজিং এর অভিযোগে ৩ যুবককে সাজা

Leave a Reply

Your email address will not be published.

জনপ্রিয়