যশোরের কেশবপুরে ভোটে হেরে রাস্তা কেটে ফেললেন মেম্বার প্রার্থী

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, জানুয়ারি ১২, ২০২২ ৬:৪৩:৩১ অপরাহ্ণ

হাফিজুর শেখ,  যশোর:
কেশবপুরের ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) ভোটে হেরে যাতায়াতের একটি রাস্তা কেটে ফেলেছেন প্রতিদ্বন্দ্বী এক সদস্য প্রার্থী।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) উপজেলার ত্রিমোহিনী ইউনিয়নের সরাপপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি তার জমির উপর দিয়ে কাউকে চলাচল করতে দিবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। এতে ওই গ্রামের অন্তত ৩০ পরিবারের লোকজনের যাতায়াতের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। বন্ধ হবার উপক্রম হয়েছে শিশুদের লেখাপড়া। গত ৫ জানুয়ারি এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে সরাপপুর গ্রামের শ্যাম সুন্দর মল্লিক ওরফে শ্যামল মল্লিক ওই ওয়ার্ডে ‘ফুটবল’ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আতাউর রহমানের কাছে ১৫৯ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন তিনি। এতে সরাপপুর মল্লিকপাড়া এলাকার লোকজনের প্রতি চরম ক্ষুব্ধ হন পরাজিত প্রার্থী শ্যামল। নির্বাচনের পরের দিন ৬ জানুয়ারি সকালে ওই রাস্তায় চলাচলকারী লোকজন ঘুম থেকে উঠে দেখে যে রাস্তটি দিয়ে তারা চলাচল করতো তা কাটা রয়েছে। পরে তারা জানতে পারেন এটি পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থী শ্যামল ও তার পরিবারের লোকজন কেটে রেখেছে। জরুরি প্রয়োজনে মানুষের বাড়ির ভেতর দিয়ে ঝোপঝাড় পেরিয়ে, অনেকটা পথ ঘুরে চলাচল করছে। এতে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে তারা। অবরুদ্ধ হয়ে গত ৫ দিন যাবত চরম কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন তারা। ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারছেননা প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে।
গ্রামের বাসিন্দা ইয়ামত আলী জানান, প্রায় ৩০ বছর ধরে ওই রাস্তা ব্যবহার করে আসছেন মল্লিকপাড়া গ্রামের লোকজন। গ্রামের লোকজন দরিদ্র হওয়ায় শ্রমিকের কাজসহ চার্জারভ্যান ও অটোরিকশা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন। রাস্তাটি কেটে ফেলায় চরম বেকায়দায় পড়েছেন তারা।

ভুক্তভোগী বয়োজ্যেষ্ঠ আব্দুল ওহাব মোল্লা বলেন, রাস্তাটি বন্ধ থাকায় আমরা খুব কষ্টে আছি। আমাদের ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা স্কুল-কলেজে যেতে পারছেনা এবং বয়স্ক মুরব্বিরা মসজিদে নামাজ পড়তে যেতে পারছেনা। এখানে তিন গ্রামের মানুষের কবরস্থানের একমাত্র পথ বন্ধ।

গ্রামের শাহানারা খাতুন ও আনোয়ারা বেগম বলেন, ভোটের আগে শ্যামল মেম্বার আমাদের গ্রামে এসে ভোট প্রার্থনা করেছিলেন। আমরা তাকেই ভোট দিয়েছি। অন্য এলাকার ভোট না পাওয়ায় তিনি পরাজিত হন। এর দায় আমাদের কাঁধে চাপিয়ে শ্যামলসহ তার কর্মী-সমর্থকরা যাতায়াতের রাস্তাটি কেটে ফেলেন।

এ প্রসঙ্গে অভিযুক্ত শ্যাম সুন্দর মল্লিক বলেন, বিষয়টি জেনেছি, যাদের জমি তারাই কেটেছে শুনেছি। আমি নির্বাচন করেছি যে কারণে প্রতিপক্ষরা ঘটনার সাথে আমাকে জড়িয়ে দিতে উঠেপড়ে লেগেছে। নির্বাচনে হেরে ক্ষুব্ধ হয়ে কাজটি করেছি এটি সঠিক নয়।

ত্রিমোহিনী ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান এস এম আনিছুর রহমান ও নবনির্বাচিত মেম্বার সবুজ জানিয়েছেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তির চেষ্টা করা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এম এম আরাফাত হোসেন বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জনপ্রিয়