রংপুরে বিএনপি নেতাকর্মীদের রাত কেটেছে গল্প-গানে

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শনিবার, অক্টোবর ২৯, ২০২২ ১০:৫১:০৪ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক:
বিএনপির রংপুর বিভাগীয় গণসমাবেশে যোগ দিতে আগের দিনই সমাবেশস্থলে এসে উপস্থিত হয়েছেন দলটির কয়েক হাজার নেতাকর্মী। রাতেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়েছে সমাবেশস্থল। রাতে মাঠে অবস্থান নেওয়া নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ফোনে ব্যস্ত সময় পার করেছেন। এ সময় শীতের কষ্ট ভুলে কেউ কেউ গান-গল্পে মেতেছেন।

শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) দিনগত রাত ১টার দিকে সমাবেশস্থলের মাঠ ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।

নেতাকর্মীরা জানায়, আমরা অনেক দূর থেকে আসছি। এখন ক্লান্ত তাই বিশ্রাম নিচ্ছি। কুড়িগ্রামের রাজারহাট থেকে আসা আরেফুল ইসলাম বলেন, রাতে তেমন কাজ নেই তাই বসে বসে সময় পার করছি।

পঞ্চগড় থেকে আসা স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মী ওয়াদুদ আলী বলেন, বাড়ি থেকে অনেক ভেঙে ভেঙে এসেছি। ২০ কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে এসেছি। কিছুক্ষণ বন্ধুদের সঙ্গে গল্প করলাম। পরে খড় বিছিয়ে গায়ে পাতলা কম্বল জড়িয়ে শুয়ে পড়ছি। একটু শীত অনুভব করছি।

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম থেকে এসেছেন ছাত্রদল নেতা সোহেল রানা। তিনি বলেন, সকালে ট্রেনে এসেছি। বাড়ি থেকে রেল স্টেশন যাওয়ার পথে পুলিশ তল্লাশিও করেছেন। একটু মেলা দেখতে আসলাম, এখনই মাঠে যাব। রাতে মাঠেই থাকব।

এদিকে, শুক্রবার ভোর থেকে চলছে পরিবহন মালিক সমিতির ডাকা বাস ধর্মঘট। ধর্মঘট চললেও বিভাগের আট জেলা বিশেষ করে ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, দিনাজপুর, গাইবান্ধা ও লালমনিরহাট জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে ট্রাক বাস ভাড়া করে এবং ট্রেনযোগে রংপুরে এসে পৌঁছেছেন হাজার হাজার নেতাকর্মী। তারা নগরীর বিভিন্ন অস্থায়ী ক্যাম্পে অবস্থান নেন।

কুড়িগ্রাম থেকে আসা যুবদলের ওয়ার্ড সভাপতি আরিফ হোসেন বলেন, বাড়িতে স্ত্রী-সন্তানকে বলে আসছি বের হলাম, ফিরব কি না জানি না। কালকের সমাবেশ থেকে সরকার পতনের যাত্রা শুরু হবে। এখানে তেমন কোনো আত্মীয় নেই থাকার মতো। তাই আসার সময় খড় আর একটা করে কম্বল নিয়ে আসছি। রাতটা এখানেই কাটিয়ে দিব।

বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর বিভাগীয় সমাবেশের সমন্বয়কারী এ জেড এম জাহেদ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, অবৈধ সরকারের টনক নড়ে গেছে। সারাদেশে গণজাগরণ দেখে ভয় পেয়েছে। সেজন্য সমাবেশের আগে বাস বন্ধ করে দিয়েছে। তবে আমাদের এ সমাবেশকে প্রতিহত করতে পারবে না তারা৷

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) কমিশনার নুরে আলম মিনা গণমাধ্যমকে বলেন, বিএনপির নেতাকর্মীদের আমরা শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছি। সমাবেশ ঘিরে যাতে কোনো ধরনের সহিংসতা না ঘটে, সেজন্য কয়েক দফায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হবে।

উল্লেখ্য, শনিবার দুপুরে রংপুর কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে গণসমাবেশ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেবেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আরও পড়ুন : রংপুরের গণসমাবেশে চিড়া-মুড়ি-কম্বল নিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা

জনপ্রিয়