লড়াই শুরু হয়ে গেছে : মির্জা ফখরুল

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, নভেম্বর ২১, ২০২২ ৪:৪৩:৫৮ অপরাহ্ণ
জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় আজ সোমবার দুপুরে বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি : সংগৃহীত

চলমান বার্তা ডেস্ক:
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, লড়াই শুরু হয়ে গেছে। মানুষ নেমে পড়েছে। এখন আমাদের আরও শক্তি সঞ্চয় করে নয়নের রক্ত, শাওনের রক্ত, রহিমের রক্ত, আলিমের রক্তের ঋণ পরিশোধ করার জন্য তৈরি হতে হবে। মানুষ কিন্তু পিছিয়ে নেই। এই বৃদ্ধ বয়সে যা দেখলাম, প্রত্যেকটি সমাবেশ আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে। আরেকটি মুক্তিযুদ্ধ করতে হবে। সেই মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়েই তাদেরকে পরাজিত করতে হবে।

জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় আজ সোমবার দুপুরে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে উত্তরবঙ্গ ছাত্র ফোরাম এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

আওয়ামী লীগের উদ্দেশে মির্জা ফখরুল বলেন, এরা আজকে গোটা বাংলাদেশের রাজনীতি, অর্থনীতি ধ্বংস করে ফেলেছে। যদি একটা জাতিকে ধ্বংস করতে হয়, তবে তার রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কাঠামোকে ধ্বংস করতে হয়, সেটাই তারা করেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ বালখিল্য আচরণ করে কেউ তাদের বিশ্বাস করে না। এরা মানুষকে মানুষ মনে করে না, এরা মনে করে বোঝা। দেশটাকে এরা পৈতৃক সম্পত্তি মনে করে। যেভাবে পারবে সেভাবে লুট করবে, কেউ কিছু বলতে পারবে না। চুরি করবে কেউ কিছু বলতে পারবে না। মানুষকে খুন করবে কেউ কিছু বলতে পারবে না।

ডলারের সংকট প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, পত্রিকায় লিখছে ব্যাংকে গেলে এখন আর এলসি খোলা যায় না। কারণ তাদের ডলার নেই, ডলার দিতে পারছে না। রিজার্ভের টাকাতো লোপাট করেই ফেলেছে। এত বেশি লোপাট করে ফেলেছে যে, নিজেরাই বলছে রিজার্ভ তো আমরা চিবিয়ে খাইনি। রিজার্ভ তো আপনারা চিবিয়ে খাননি; গিলে ফেলেছেন, পাচার করে দিয়েছেন।

ফখরুল বলেন, আমরা আন্দোলন করে এই সরকারকে সরাবো। এ সরকারকে সরানোর পরে আমরা আন্দোলনকারী সকল দলগুলোকে নিয়ে একটি জাতীয় সরকার গঠন করব। তখন সমস্ত মানুষগুলোকে নিয়ে এদেশকে এরা (আওয়ামী লীগ) যে ডাস্টবিন বানিয়ে ফেলেছে, নর্দমা বানিয়ে ফেলেছে, এটাকে পরিষ্কার করার জন্য সকলকে নিয়েই করতে হবে। আমাদের বিচার ব্যবস্থাকে সংস্কার করতে হবে। প্রশাসন ব্যবস্থাকে সংস্কার করতে হবে। প্রশাসনকে ঢেলে সাজাতে হবে। শিক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে হবে। স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে হবে। সত্যিকার অর্থে একটি আধুনিক জনকল্যাণমূলক রাষ্ট্র গড়ে তুলতে হবে।

যে মামলা খালাস হয়ে গেছে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের বিরুদ্ধে আবার নতুন করে মামলা শুরু হয়েছে জানিয়ে ফখরুল বলেন, বিচার বিভাগের প্রতি সম্মান রেখে বলতে চাই, দয়া করে ন্যায়বিচার করুন।

আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ করে তিনি আরও বলেন, বারবার বলছি, আবারও বলছি, আমাদের ৩৫ লাখ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছ। আমাদের সাতজন যোদ্ধা প্রাণ দিয়েছে। এই মূল্য অবশ্যই দিতে হবে। এখনো সময় আছে সরে দাঁড়ান। তা না হলে জনগণের যে উত্তাল তরঙ্গ সৃষ্টি হয়েছে, সুনামির মতো আপনাদেরকে ভাসিয়ে নিয়ে যাবে।

সংগঠনের উপদেষ্টা আমিরুল ইসলাম খান আলিমের সভাপতিত্বে এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য কাদের গনি চৌধুরী, ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, সাবেক দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সাত্তার পাটোয়ারী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

আরও পড়ুন : মানুষ জেগেছে, হুমকি-ধমকি দিয়ে লাভ হবে না : মির্জা ফখরুল

জনপ্রিয়