স্থিত হওয়া জুটি ভাঙলেন সাকিব

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, মে ২৫, ২০২২ ৬:১০:৫৭ অপরাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক
প্রথম সেশন কেটেছে ভালোভাবেই। ছিল না বৃষ্টির বাধা। রোদ ঝলমলে সেশনে দুই উইকেট নিয়ে বাংলাদেশও দারুণ শুরু করে। কিন্তু লাঞ্চ বিরতি থেকেই বাগড়া দেয় বেরসিক বৃষ্টি। বৃষ্টির কারণে প্রায় চার ঘণ্টা বন্ধ ছিল বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার টেস্টের তৃতীয় দিনের লড়াই। বৃষ্টি থামার পর ফের মাঠের লড়াইয়ে নেমেছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা।

লম্বা সময় পর ব্যাটিংয়ে নেমেও মনোযোগে চিড় ধরেনি লঙ্কান ব্যাটারদের। বেশ সতর্ক ব্যাটিংয়েই দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন উইকেটে থাকা দুই ব্যাটার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ও ডি সিলভা। জমে উঠেছিল লঙ্কানদের এই জুটি। অবশেষে সিলভাকে আউট করে জমে ওঠা এই জুটি ভেঙেছেন সাকিব। ৯৫ বলে ৫৮ রান করে ফিরেছেন সিলভা।

আজ বুধবার দিনের প্রথম সেশনটা ভালোই কাটে বাংলাদেশের। দিনের শুরুতেই লঙ্কানদের জুটি ভেঙেছেন ইবাদত হোসেন। ফিরিয়ে দিয়েছেন আগের দিন নাইটওয়াচম্যান হিসেবে মাঠে নামা কাসুন রাজিথাকে। এরপর থিতু হয়ে যাওয়া দিমুথ করুনারত্নের প্রতিরোধ ভাঙেন সাকিব আল হাসান। জোড়া উইকেট তুলে নিয়ে প্রথম সেশনে বাংলাদেশকে স্বস্তি দিয়েছেন সাকিব ও ইবাদত।

ইবাদতের করা দিনের দ্বিতীয় বল মোকাবিলা করতে গিয়ে লাইন মিস করেন রাজিথা। তাঁর ব্যাট ফাঁকি দিয়ে বল আঘাত করে স্টাম্পে। এরপর করুনারত্নেকে বোল্ড করে ফেরান সাকিব। ১৫৫ বলে ৮০ রান করে ভাঙে লঙ্কান অধিনায়কের প্রতিরোধ।

ঢাকা টেস্টের প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিনটাও নিজেদের করে নিতে পারতো বাংলাদেশ। কিন্তু অনেকগুলো সুযোগ হাতছাড়ার কারণে সেটা হয়নি। দ্বিতীয় দিন প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে লড়াইয়ের আভাস দিয়ে রেখেছে লঙ্কানরাও। তবে অতিথিদের লড়াই জমে ওঠার আগে তাদের দ্রুত থামানোই এখন মূল লক্ষ্য বাংলাদেশের। সেই লক্ষ্যে আজ দিনের শুরুটা ভালোই হলো মুমিনুলদের।

গতকাল মঙ্গলবার টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ দাঁড়িয়েছিল দুই উইকেটে ১৪৩ রান। দিন শেষে উইকেটে অপরাজিত ছিলেন দিমুথ করুনারত্নে। তাঁর সঙ্গে অপরাজিত ছিলেন কাসুন রাজিথা। আজ দুজনেই ফিরেছেন সাজঘরে।

এ ছাড়া গতকাল আউট হওয়া দুই ব্যাটারদের মধ্যে ওপেনার ওসাদা ফার্নান্দো করেছেন ৫৭ রান আর কুশল মেন্ডিস করেছেন ১১ রান। ২২২ রানে পিছিয়ে থেকে আজ বুধবার টেস্টের তৃতীয় দিন শুরু করেছে সফরকারীরা।

এর আগে টেস্টের দ্বিতীয় দিন মুশফিকুর রহিমের লড়াইয়ের পর প্রথম ইনিংসে ৩৬৫ রানে থেমেছে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত মুশফিক নিজে খেলেছেন ১৭৫ রানের ইনিংস। এ ছাড়া লিটন খেলেছেন ১৪১ রানের ইনিংস। ২৪৬ বলে তাঁর ইনিংস সাজানো ছিল ১৬ বাউন্ডারি ও এক ছক্কা দিয়ে।

আরও পড়ুন : লিটন-মুশফিকের সেঞ্চুরিতো রঙিন হলো হতাশার শুরু

জনপ্রিয়