হিলারি-ট্রুডোর ওপরও রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞা

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, মার্চ ১৬, ২০২২ ১০:২৩:২৫ পূর্বাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক
যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ফার্স্টলেডি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন এবং কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর ওপরও নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে রাশিয়া। এ তালিকায় আরও আছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, প্রতিরক্ষামন্ত্রীসহ মার্কিন প্রশাসনের বেশ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

বিবিসি ও আল–জাজিরার। তাঁদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দেয় রাশিয়া।

রাশিয়া মঙ্গলবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সালিভান, সিআইএ প্রধান উইলিয়াম বার্নসের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এ তালিকায় হিলারি ক্লিনটন ও জাস্টিন ট্রুডোর নামও রয়েছে। রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ল্যাভরভ এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

এ ব্যাপারে ক্রেমলিনের ঘোষণা উদ্ধৃত করে রাশিয়ার রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম আরটি বলছে—সম্প্রতি ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনসহ রাশিয়ার বেশ কয়েকজন নেতা ও কর্মকর্তাকে ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করার পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে মস্কো মোট ১৩ জন মার্কিনির ওপর এ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। তালিকায় প্রেসিডেন্ট বাইডেন এবং তাঁর কয়েকজন মন্ত্রী এবং নিরাপত্তা উপদেষ্টা ছাড়াও মার্কিন সেনাপ্রধান জেনারেল মার্ক মাইলি এবং হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন সাকিও রয়েছেন।

সাবেক মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন এবং জো বাইডেনের ছেলে হান্টার বাইডেনকেও রাশিয়ার এ নিষেধাজ্ঞার তালিকায় ঢোকানো হয়েছে।

আরটি বলছে—নিষেধাজ্ঞার তালিকাভুক্ত ব্যক্তিরা রুশ ফেডারেশনে প্রবেশ করতে করতে পারবেন না। তবে, একই সঙ্গে বলা হয়েছে, রাশিয়ার ‘জাতীয় স্বার্থে’ ভবিষ্যতে মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার সম্ভাবনা নাকচ করা হচ্ছে না।

ক্রেমলিনের বিবৃতি উদ্ধৃত করে আরটি বলছে—নিষেধাজ্ঞার তালিকায় ‘অদূর ভবিষ্যতে’ আরও নাম ঢুকবে। বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের “যেসব কর্মকর্তা, সামরিক কর্মকর্তা, আইনপ্রণেতা, ব্যবসায়ী, বিশেষজ্ঞ ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব ‘রুশোফোবিক’ (রাশিয়াবিদ্বেষী) অথবা রাশিয়ার বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ানোয় ভূমিকা রাখছেন”, তাদেরও কালো তালিকাভুক্ত করা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রও এর আগে রাশিয়ার বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

রাশিয়া এ সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে যুক্তরাষ্ট্র বেশ কয়েকজন সিনিয়র রুশ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দেয়। তাঁদের মধ্যে রাশিয়ার কয়েকজন উপমন্ত্রী এবং সরকারি একটি নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালক রয়েছেন।

কানাডাও গতকাল ১৫ জন জ্যেষ্ঠ রুশ কর্মকর্তাকে নিষেধাজ্ঞার তালিকায় ঢুকিয়েছে।

এ ছাড়া ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাজ্যও রাশিয়ার ওপর আরেক দফা অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞার কথা ঘোষণা করেছে। যার অংশ হিসেবে ইউরোপ থেকে রাশিয়ায় গাড়িসহ বিলাসবহুল পণ্য রপ্তানি নিষিদ্ধ থাকবে।

আরো পড়ুন : জো বাইডেনের ওপর রাশিয়ার নিষেধাজ্ঞা

জনপ্রিয়