১০ লাখ টাকায় কেনা মৃত্যু

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : শুক্রবার, মে ১৭, ২০১৯ ১০:২০:৪৯ অপরাহ্ণ
Reza

রেজা চৌধুরী:
পরিবারের স্বচ্ছলতা আনার জন্য মানব পাচারকারীদের হাতে ১০ লাখ করে টাকা দিয়েছিল ইউরোপ যাওয়ার জন্য বেশ কিছু যুবক। সমুদ্রপথে অবৈধভাবে ইতালি যাওয়ার সময় ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে মর্মান্তিকভাবে মারা যান ৩৯জন বাংলাদেশী। ঘটনাটি ঘটে ১০ই মে তিউনিসিয়ার উপকূলে।

কিন্তু কেন তাদের এই টাকার বিনিময়ে মুত্যৃ কিনে নিতে হয়? তার সদুত্তর হয়ত কারো কাছেই নেই। না সমাজের কাছে, না রাষ্ট্রের কাছে, না পরিবারের কাছে।

আমাদের দেশে যেখানে স্বল্প বিনিয়োগের মাধ্যমে যথেষ্ঠ টাকা আয় করার নজির আছে। সেখানে বিদেশের প্রতি এমন মোহ কেন? আমরা কেউ গ্রামে গরু, ছাগল পালন করতে চাই না, মাছ চাষ করতে আছে অনীহা। আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদ করে যে আর্থিক স্বচ্ছলতা আনা যায়, সেটা আমরা ভাবি না। বিদেশে নিরাপদ আর স্বল্প শ্রমে বেশি আয়ের লোভে লক্ষ লক্ষ টাকা দিয়ে জীবন বাজি রেখে পাড়ি জমাতে চাই বিদেশে।অথচ সেখানে গিয়ে এই সকল যুবক যে কাজ করে, তা কখনো লজ্জায় দেশের কাউকে বলেন না বা বুঝতে দেন না। অথচ সেই একই কাজ যদি দেশের মাটিতে করা যায়, তাহলে বাবা মার মুখে তৃপ্তির খাবার তুলে দেয়া যায়। সংসারে হাসি ফোটানো যায়।

তবে আমাদের দেশের শ্রম বাজার নিয়ে, চাকরির বাজার নিয়ে রয়েছে তরুণদের মাঝে এক ধরণের অসন্তোষ। তদবির এবং ঘুষ ছাড়া সরকারি চাকরি মেলে না। বেসরকারি চাকরিতেও আজকাল প্রভাবশালী সরকারি আমলা, ক্ষমতাশীন দলের নেতার সুপারিশেরও প্রয়োজন হয়। যা সত্যিই আমাদের জন্য লজ্জাজনক। এক্ষেত্রে যারা কারো সুপারিশ সংগ্রহণ করতে পারেন না, তারা দেশের শ্রম বাজারে হয়ে পড়েন অযোগ্য।

ব্যবসার ক্ষেত্রেও রয়েছে চাঁদাবাজি ও দলবাজির অভিযোগ। ক্ষমতাশীনরা এখানে বেশি আনুকল্য পেয়ে থাকেন বলে অভিযোগ রয়েছে। আর এ সকল কারণে তরুণ সমাজ যেমন জীবিকার তাগিদে দেশের মায়া ভুলে জমি জমা বিক্রি করে পাড়ি দিতে যায় উন্নত বিশ্বে, গড়তে চায নিরাপদ জীবন, হাসি ফোটাতে চায় জন্মদাতা পিতা-মাতা আর ভাই-বোনের মুখে। অথচ ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে সেই সেই পিতা-মাতার ভাগ্যে জোটে সন্তান হারানোর অসহনীয় শোক।

এছাড়া মানবপাচার চক্র অনেক মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়েও তাদেরকে বিদেশ যেতে উদ্বুদ্ধ করে। এই বিষয়টিও বন্ধ হওয়া দরকার। সরকারের পক্ষ থেকে এ সকল চক্রকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে যথাযথ শাস্তি দেয়া হোক।

বাবা-মায়েদের বিষয়টির প্রতি যথেষ্ঠ খেয়াল রাখতে হবে। নিজের প্রিয় সন্তানকে বিদেশ যাওয়ার অভিলাষ থেকে দুরে রেখে দেশের মাটিতে কীভাবে আয়ের প্রতি মনোযোগ হওয়া যায়, তা বোঝাতে হবে।

আরও পড়ুন : বগুড়া-৬ আসনে উপ-নির্বাচন; বিএনপি’র জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

জনপ্রিয়