মমতার বিজয়ের খবরে যেভাবে শিরোনাম হয়েছে কলকাতার গণমাধ্যমগুলোতে

সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে : সোমবার, মে ৩, ২০২১ ২:৩৬:০৭ অপরাহ্ণ

চলমান বার্তা ডেস্ক রিপোর্ট:
পশ্চিমবঙ্গের সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে মমতা ব্যানার্জীর দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিজয়কে কলকাতার গণমাধ্যমগুলো নানা আকর্ষণীয় ও চমকপ্রদ শিরোনামে তুলে ধরেছে। এমনকী, আজ সোমবার সকালে পত্রিকার শিরোনাম কী হওয়া উচিৎ, তা নিয়েও নিজস্ব মতামত দিয়েছেন অনেক পাঠক।

পশ্চিমবঙ্গে সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক ও প্রায় একশো বছরের পুরনো আনন্দবাজার পত্রিকা হেডলাইন করেছে, ”দিদি .. ই”!এই শিরোনামের অবশ্যই একটা প্রেক্ষাপট আছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এ রাজ্যে তার নির্বাচনী জনসভাগুলোতে নিয়ম করে মমতা ব্যানার্জীকে সম্বোধন করতেন ”দিদিইইই, ও দিদিইইই” বলে … যেটাকে তৃণমূল কংগ্রেস পাড়ার বখাটে ছেলেদের টিটকিরির সঙ্গেও তুলনা করেছিল।

দলের এমপি মহুয়া মৈত্র বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখে এ ধরনের ‘ক্যাট কল’ মানায় না। সেই টিটকিরির জবাব দিয়ে ‘দিদি-ই’ যে আবার রাজ্যের ক্ষমতায় ফিরলেন, আনন্দবাজার সেটাই বোঝাতে চেয়েছে তাদের হেডলাইনে।

কলকাতার আরেকটি জনপ্রিয় বাংলা দৈনিক প্রতিদিনের শিরোনাম হল ”মেয়ের কাছেই বাংলা”। সঙ্গে তারা লিখেছে : মমতার হ্যাটট্রিক, বিজেপির স্বপ্নচূর্ণ, বাম-কংগ্রেস নিশ্চিহ্ন।

এবারের ভোটে তৃণমূলের স্লোগান ছিল, ”বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়”। বিজেপির দলীয় মতাদর্শ ও নেতৃত্বকে তারা ‘বহিরাগত’ বলে তুলে ধরতে চেয়েছিলেন – আর এই শিরোনাম বলে দিচ্ছে বাংলা শেষ পর্যন্ত ‘নিজের মেয়ে’র ওপরেই ভরসা রেখেছে। ‘দ্য ইকোনমিক টাইমস’ পত্রিকার শিরোনাম হল : ‘মমতা হাম্বলস বিজেপি, হোল্ডস ফোর্ট্রেস বেঙ্গল’।

বিজেপিকে ধরাশায়ী করে মমতা ব্যানার্জী যে আরও একবার পশ্চিমবঙ্গকে নিজের ‘গড়’ বলে প্রমাণ করেছেন, রবিবারের নির্বাচনী ফলাফলই তা বলে দিচ্ছে – এবং ওই পত্রিকার শিরোনামেও সেটাই প্রতিফলিত হয়েছে। সোমবার সকালে ‘বর্তমান’ পত্রিকার শিরোনাম করা হয়েছে : ”হ্যাটট্রিক : বাংলা ফের মমতাময়”। সংক্ষিপ্ত ও সহজ।

‘খবর ৩৬৫ দিন’ নামে তৃণমূল-ঘেঁষা একটি পত্রিকা গত মধ্যরাতেই শিরোনাম করেছিল ”মোদিষাসুরমর্দিনী”। দশভুজা মা দুর্গার মতো মমতা ব্যানার্জীও বিজেপি নামক ‘অসুর’কে নিধন করেছেন এই নির্বাচনে, এই বার্তাই দিতে চেয়েছে তারা। সঙ্গে তারা আরও লিখেছিল : ”বাংলা বাঙালির, আর কারো নয়”!

কলকাতার ইংরেজি দৈনিকগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় দ্য টেলিগ্রাফের হেডিং ছিল : ‘গুড মর্নিং বেঙ্গল : অ্যান ইনক্লুসিভ ভোট এগেইনস্ট কমিউনালিজম’।

এই ভোটের রায় যে সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সব ধর্মের, সব শ্রেণীর মানুষের রায় সেটাই তারা বোঝাতে চেয়েছে এই শিরোনামে।

শুধু তাই নয়, খুব বড় ফন্টে ‘বেঙ্গল’ লিখে তারা এর ইংরেজি বানানে জুড়ে দিয়েছে একটি বাড়তি ‘এল’ – আর তার ফলে শেষে তৈরি হওয়া ‘অল’ শব্দটির তিনটি অক্ষর লিখেছে গেরুয়া, সাদা আর সবুজ রঙে। পশ্চিমবঙ্গে যে সবার, তারই প্রতীক হিসেবে।

দ্য টেলিগ্রাফ সম্ভাব্য শিরোনাম কী হতে পারে, সে ব্যাপারে পাঠকদেরও মতামত চেয়েছিল – তাতেও দারুণ সব প্রস্তাব এসেছে।

ক) যেমন কেউ লিখেছেন ”দড়ি ধরে মারো টান, রাজা হবে খান খান” (সত্যজিৎ রায়ের ‘হীরক রাজার দেশে’র সেই বিখ্যাত উক্তি ধার করে)।

খ) কারও পছন্দ ‘ভাইরাস কিলার’। এখানে ভাইরাসটি যে করোনা নয়, তা অবশ্য বলাই বাহুল্য।

গ) বিজেপির স্লোগান ‘জয় শ্রীরামে’র পাল্টা হিসেবে এই দিনটিতে কেউ কেউ শিরোনাম চেয়েছেন ‘জয় শ্রীসীতা’ বা ‘জয় মমতাদিদি’।

ঘ) কেউ চেয়েছেন একটু প্রতীকী শিরোনাম, যেমন ‘আমার ছেঁড়া জিনস এবার অন্তত নিরাপদ’।

ঙ) এবার যেহেতু ভোট গণনা হয়েছে সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষে, তাই অনেকে তাঁর সৃষ্টি বা নাম নিয়ে কিছুটা ‘পান’ করেও শিরোনাম করার প্রস্তাব দিয়েছেন।

কেউ বলেছেন হেডলাইন হতে পারে সত্যজিতের ক্লাসিক ছবি ‘অপরাজিত’র নাম অনুযায়ী, অথবা নিছকই ‘সত্য, জিৎ, রায়’। মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন।

আরো পড়ুন : কাবুলে ট্যাংকার বিষ্ফোরণে ৭ জন নিহত, আহত ১৪

জনপ্রিয়

%d bloggers like this: